শহীদ মিনারের ভেতরেই এলপি গ্যাসের বোমা!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

চাষাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের উত্তর পাশে বৈদুতিক ট্রান্সফরমারের নীচে বর্তমান সময়ে বোমা হিসেবে পরিচিত এলপি গ্যাসের প্রকাশ্যে ব্যবহার করা হলেও প্রশাসন দেখেও না দেখার ভান করছেন বলে অভিমত দুর-দরান্ত থেকে শহীদ মিনারে আসা সাধারন মানুষগুলোর।

 

সরেজমিনে রবিবার ( ১৩ সেপ্টেম্বর ) সকাল সাড়ে ১১টায় দেখা যায়, সান্তনা মাকের্টের মানিক নামে এক দোকানী শহীদ মিনারের উত্তর পাশে বৈদুতিক ট্রান্সফারমারের নীচে পুরি,সিঙ্গারার দোকান খুলে বসেছেন। আর সেগুলো হচ্ছে এলপি গ্যাসের চুলার মাধ্যমে। শহীদ মিনারের ভেতরে গ্যাসের বোতলটি রেখে বাহিরে চুলা জালিয়ে সেগুলো ভাজা হচ্ছে। বর্তমান সময়ে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেই এলপি গ্যাসের বোতলের বিস্ফোরন হয়ে প্রছুর মানুষের হতাহতের পাশাপাশি ব্যপক ক্ষতিসাধনও হচ্ছে। ইতিপুর্বেও শহীদ মিনারের পাশে একটি ফাষ্টফুডের দোকানে এলপি গ্যাসের আগুনের ফুলে শহীদ মিনারে আসা সাধারন মানুষের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়েছিলো। পরে ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম এসে সেই আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। এভাবে শহীদ মিনারের মত খোলাস্থানে কিভাবে দোকানীরা এলপি গ্যাস ব্যবহার করে তা অনেকেরই বোধগম্য হয়না। শহীদ মিনারে আগত সাধারন মানুষ এলপি গ্যাসের বোতলের ব্যবহার না করার আহবান করলেও দোকানের মালিক মানিক ও তার ষ্টাফরা কর্নপাত করছেন না। তারপরে শহীদ মিনারে সব সময় পুলিশের ডিউটি থাকা সত্তে¡ও তারাও কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেনা বলে জানান মিনারে আসা সাধারন মানুষগুলো জানান।

 

আবদুল আউয়াল নামে এক ব্যক্তি জানান,এলপি গ্যাস ব্যবহারে সাবধানতা না থাকলে যেকোন সময় বিপদ হতে পারে। কিন্তু শহীদ মিনারের মত একটি উন্মুক্তস্থানে ভিতরে গ্যাসের সিলিন্ডার রেখে খাবার তৈরী করা হচ্ছে কিভাবে তা বলাবাহুল্য। তারপরে আবার একটি বৈদুতিক ট্রান্সফারমারের নীচে কি আশ্চর্য্য বিষয়? যদি কোন ধরনের দূর্ঘটনা ঘটে তাহলে এর দায়ভার কে নিবে ? আমি শহীদ মিনারের ভেতর ও আশপাশ থেকে দোকানীদের ব্যবহৃত এলপি গ্যাসের সিলিন্ডারগুলো অতিদ্রুত সরানোর জন্য এনসিসি মেয়রের সদয় দৃষ্টি কামনা করছি।

Facebook Comments

সর্বশেষ সংবাদ



» ক‌রোনা জয় কর‌লেন ওসমান পরিবারের পুত্রবধূ লি‌পি ওসমান

» বাগেরহাটে পল্লীতে গরুর খাদ্যে দুর্বৃত্তদের আগুন

» এসপির সামনে নাসিক কাউন্সিলরের শেল্টারে মাদক ব্যবসার অভিযোগ এনে রোষানলে যুবক

» সিদ্ধিরগঞ্জে ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত

» সালাউদ্দিন হটাও শ্লোগানে শরীয়তপুরে ফুটবলপ্রেমীদের মানববন্ধন

» ডেমরা জোনের ট্রাফিক সার্জেন্টের বেপরোয়া চাঁদাবাজি

» ফতুল্লা লঞ্চঘাট! যাত্রীকে নাজেহাল করা যেখানে নিত্তনৈমিত্তিক বিষয়!

» কুয়াকাটায় ক্রমশই বাড়ছে অপরাধমূলক কর্মকান্ড

» বেনাপোল স্টেশন রোডস্থ ফুটপথে অবৈধ ভাবে রাখা ইটেরখোয়াও বালু’ চলাচলে ভোগান্তি

» ভারত থেকে ৩১টি পঁচা পেঁয়াজের ট্রাক বাংলাদেশে




প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
সহ সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : কাজী আবু তাহের মো. নাছির
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ,

বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৭১৪ ০৪৩ ১৯৮।
News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শহীদ মিনারের ভেতরেই এলপি গ্যাসের বোমা!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

চাষাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের উত্তর পাশে বৈদুতিক ট্রান্সফরমারের নীচে বর্তমান সময়ে বোমা হিসেবে পরিচিত এলপি গ্যাসের প্রকাশ্যে ব্যবহার করা হলেও প্রশাসন দেখেও না দেখার ভান করছেন বলে অভিমত দুর-দরান্ত থেকে শহীদ মিনারে আসা সাধারন মানুষগুলোর।

 

সরেজমিনে রবিবার ( ১৩ সেপ্টেম্বর ) সকাল সাড়ে ১১টায় দেখা যায়, সান্তনা মাকের্টের মানিক নামে এক দোকানী শহীদ মিনারের উত্তর পাশে বৈদুতিক ট্রান্সফারমারের নীচে পুরি,সিঙ্গারার দোকান খুলে বসেছেন। আর সেগুলো হচ্ছে এলপি গ্যাসের চুলার মাধ্যমে। শহীদ মিনারের ভেতরে গ্যাসের বোতলটি রেখে বাহিরে চুলা জালিয়ে সেগুলো ভাজা হচ্ছে। বর্তমান সময়ে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেই এলপি গ্যাসের বোতলের বিস্ফোরন হয়ে প্রছুর মানুষের হতাহতের পাশাপাশি ব্যপক ক্ষতিসাধনও হচ্ছে। ইতিপুর্বেও শহীদ মিনারের পাশে একটি ফাষ্টফুডের দোকানে এলপি গ্যাসের আগুনের ফুলে শহীদ মিনারে আসা সাধারন মানুষের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়েছিলো। পরে ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম এসে সেই আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। এভাবে শহীদ মিনারের মত খোলাস্থানে কিভাবে দোকানীরা এলপি গ্যাস ব্যবহার করে তা অনেকেরই বোধগম্য হয়না। শহীদ মিনারে আগত সাধারন মানুষ এলপি গ্যাসের বোতলের ব্যবহার না করার আহবান করলেও দোকানের মালিক মানিক ও তার ষ্টাফরা কর্নপাত করছেন না। তারপরে শহীদ মিনারে সব সময় পুলিশের ডিউটি থাকা সত্তে¡ও তারাও কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেনা বলে জানান মিনারে আসা সাধারন মানুষগুলো জানান।

 

আবদুল আউয়াল নামে এক ব্যক্তি জানান,এলপি গ্যাস ব্যবহারে সাবধানতা না থাকলে যেকোন সময় বিপদ হতে পারে। কিন্তু শহীদ মিনারের মত একটি উন্মুক্তস্থানে ভিতরে গ্যাসের সিলিন্ডার রেখে খাবার তৈরী করা হচ্ছে কিভাবে তা বলাবাহুল্য। তারপরে আবার একটি বৈদুতিক ট্রান্সফারমারের নীচে কি আশ্চর্য্য বিষয়? যদি কোন ধরনের দূর্ঘটনা ঘটে তাহলে এর দায়ভার কে নিবে ? আমি শহীদ মিনারের ভেতর ও আশপাশ থেকে দোকানীদের ব্যবহৃত এলপি গ্যাসের সিলিন্ডারগুলো অতিদ্রুত সরানোর জন্য এনসিসি মেয়রের সদয় দৃষ্টি কামনা করছি।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
সহ সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : কাজী আবু তাহের মো. নাছির
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ,

বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৭১৪ ০৪৩ ১৯৮।
News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD