ভারতের ২৫ এমপি করোনায় আক্রান্ত

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

ভারতে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে করোনাকালে সংসদের অধিবেশন। এ জন্য এমপিদের বাধ্যতামূলকভাবে করোনা পরীক্ষা করতে হয়েছে। তাতে জানা গেলো, লোকসভা ও রাজ্যসভা মিলিয়ে করোনায় আক্রান্ত ২৫ জন সাংসদ। খবরে বলা হয়েছে, লোকসভার ১৭ জন, রাজ্যসভার আট জন। এদের মধ্যে বিজেপি-র ১৪ জন সাংসদ করোনায় আক্রান্ত। সেই তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের সংসদ সুকান্ত মজুমদারও আছেন। এ ছাড়া কংগ্রেস, ওয়াই এসআর কংগ্রেস,শিবসেনা, ডিএমকে, এডিএমকে, আপ, টিআরএস ও তৃণমুলের সাংসদরাও করোনায় আক্রান্ত।

 

এতজন সাংসদের করোনা হওয়াটা নিঃসন্দেহে বড় ঘটনা। এর আগে সাংসদ ও বিধায়করাও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, কয়েকজন রাজনীতিক মারাও গেছেন। তবে সেই সংখ্যাটা কখনও এত বেশি ছিল না। সংসদ অধিবেশনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে পাশাপাশি বসা দুই সাংসদের মাঝে লাগানো হয়েছে পলিকার্বন শিট। প্রত্যেক সাংসদের দুই পাশের আসন খালি। সবার করোনা পরীক্ষা হয়েছে। প্রবেশের সময় হাত স্যানিটাইজার দিয়ে জীবাণুমক্ত করতে হয়েছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে লোকসভায় অর্ধেক সদস্যই বসতে পারছেন। কিছু সাংসদ বসছেন দর্শক গ্যালারিতে। কিছু সাংসদ রাজ্যসভায় এবং রাজ্যসভার দর্শক গ্যালারিতে।

 

রাজ্যসভার ক্ষেত্রেও একইরকমভাবে রাজ্যসভা, দর্শক গ্যালারি ও লোকসভায় সাংসদরা বসছেন। এ জন্য লোকসভা ও রাজ্যসভার অধিবেশন একসঙ্গে বসছে না। আলাদা সময়ে বসছে। সোমবার প্রথমে লোকসভা বসেছে। পরে রাজ্যসভা। কিন্তু মঙ্গলবার সকাল নয়টা থেকে একটা পর্যন্ত বসবে রাজ্যসভা, তারপর তিনটে থেকে বসবে লোকসভা। চলবে সাতটা পর্যন্ত। মাঝখানের সময়ে সংসদভবন স্যানিটাইজ করা হবে। প্রথমদিন লোকসভার অনেক সাংসদই উপস্থিত ছিলেন না। সোনিয়া গান্ধী চেক আপ করাতে বিদেশে গেছেন। মায়ের সঙ্গে গেছেন রাহুলও। ফলে তারা কেউই ছিলেন না। তাছাড়া বয়স্ক বেশ কিছু সাংসদও অনুপস্থিত ছিলেন।

 

প্রথমদিন লোকসভায় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সংসদ ভবনে মোদি বলেন, আশা করছি, সাংসদরা একজোট হয়ে আমাদের সেনার পাশে থাকার বার্তা দেবেন। এতদিন সবাইকে দাঁড়িয়ে কথা বলতে হতো। কিন্তু এবার স্পিকার ওম বিড়লার রুলিং জারি করে বলেছেন, কেউ দাঁড়িয়ে কথা বলবেন না। সবাইকে বসে কথা বলতে হবে। তবে প্রথমদিনেই বিরোধীরা বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। সকালে অধিবেশন শুরুর আগে ডিএমকে সাংসদরা গান্ধী মূর্তির সামনে ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষা নিট করার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখান।

 

লোকসভা ও রাজ্যসভায় এ বার প্রশ্নোত্তরপর্ব নেই। জিরো আওয়ার একঘণ্টার জায়গায় আধঘণ্টা করা হয়েছে। ফলে বিরোধী দলগুলি রীতিমতো ক্ষুব্ধ। সূত্র: ডয়চে ভেলে

 

Facebook Comments

সর্বশেষ সংবাদ



» ক‌রোনা জয় কর‌লেন ওসমান পরিবারের পুত্রবধূ লি‌পি ওসমান

» বাগেরহাটে পল্লীতে গরুর খাদ্যে দুর্বৃত্তদের আগুন

» এসপির সামনে নাসিক কাউন্সিলরের শেল্টারে মাদক ব্যবসার অভিযোগ এনে রোষানলে যুবক

» সিদ্ধিরগঞ্জে ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত

» সালাউদ্দিন হটাও শ্লোগানে শরীয়তপুরে ফুটবলপ্রেমীদের মানববন্ধন

» ডেমরা জোনের ট্রাফিক সার্জেন্টের বেপরোয়া চাঁদাবাজি

» ফতুল্লা লঞ্চঘাট! যাত্রীকে নাজেহাল করা যেখানে নিত্তনৈমিত্তিক বিষয়!

» কুয়াকাটায় ক্রমশই বাড়ছে অপরাধমূলক কর্মকান্ড

» বেনাপোল স্টেশন রোডস্থ ফুটপথে অবৈধ ভাবে রাখা ইটেরখোয়াও বালু’ চলাচলে ভোগান্তি

» ভারত থেকে ৩১টি পঁচা পেঁয়াজের ট্রাক বাংলাদেশে




প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
সহ সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : কাজী আবু তাহের মো. নাছির
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ,

বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৭১৪ ০৪৩ ১৯৮।
News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভারতের ২৫ এমপি করোনায় আক্রান্ত

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

ভারতে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে করোনাকালে সংসদের অধিবেশন। এ জন্য এমপিদের বাধ্যতামূলকভাবে করোনা পরীক্ষা করতে হয়েছে। তাতে জানা গেলো, লোকসভা ও রাজ্যসভা মিলিয়ে করোনায় আক্রান্ত ২৫ জন সাংসদ। খবরে বলা হয়েছে, লোকসভার ১৭ জন, রাজ্যসভার আট জন। এদের মধ্যে বিজেপি-র ১৪ জন সাংসদ করোনায় আক্রান্ত। সেই তালিকায় পশ্চিমবঙ্গের সংসদ সুকান্ত মজুমদারও আছেন। এ ছাড়া কংগ্রেস, ওয়াই এসআর কংগ্রেস,শিবসেনা, ডিএমকে, এডিএমকে, আপ, টিআরএস ও তৃণমুলের সাংসদরাও করোনায় আক্রান্ত।

 

এতজন সাংসদের করোনা হওয়াটা নিঃসন্দেহে বড় ঘটনা। এর আগে সাংসদ ও বিধায়করাও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, কয়েকজন রাজনীতিক মারাও গেছেন। তবে সেই সংখ্যাটা কখনও এত বেশি ছিল না। সংসদ অধিবেশনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে পাশাপাশি বসা দুই সাংসদের মাঝে লাগানো হয়েছে পলিকার্বন শিট। প্রত্যেক সাংসদের দুই পাশের আসন খালি। সবার করোনা পরীক্ষা হয়েছে। প্রবেশের সময় হাত স্যানিটাইজার দিয়ে জীবাণুমক্ত করতে হয়েছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে লোকসভায় অর্ধেক সদস্যই বসতে পারছেন। কিছু সাংসদ বসছেন দর্শক গ্যালারিতে। কিছু সাংসদ রাজ্যসভায় এবং রাজ্যসভার দর্শক গ্যালারিতে।

 

রাজ্যসভার ক্ষেত্রেও একইরকমভাবে রাজ্যসভা, দর্শক গ্যালারি ও লোকসভায় সাংসদরা বসছেন। এ জন্য লোকসভা ও রাজ্যসভার অধিবেশন একসঙ্গে বসছে না। আলাদা সময়ে বসছে। সোমবার প্রথমে লোকসভা বসেছে। পরে রাজ্যসভা। কিন্তু মঙ্গলবার সকাল নয়টা থেকে একটা পর্যন্ত বসবে রাজ্যসভা, তারপর তিনটে থেকে বসবে লোকসভা। চলবে সাতটা পর্যন্ত। মাঝখানের সময়ে সংসদভবন স্যানিটাইজ করা হবে। প্রথমদিন লোকসভার অনেক সাংসদই উপস্থিত ছিলেন না। সোনিয়া গান্ধী চেক আপ করাতে বিদেশে গেছেন। মায়ের সঙ্গে গেছেন রাহুলও। ফলে তারা কেউই ছিলেন না। তাছাড়া বয়স্ক বেশ কিছু সাংসদও অনুপস্থিত ছিলেন।

 

প্রথমদিন লোকসভায় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সংসদ ভবনে মোদি বলেন, আশা করছি, সাংসদরা একজোট হয়ে আমাদের সেনার পাশে থাকার বার্তা দেবেন। এতদিন সবাইকে দাঁড়িয়ে কথা বলতে হতো। কিন্তু এবার স্পিকার ওম বিড়লার রুলিং জারি করে বলেছেন, কেউ দাঁড়িয়ে কথা বলবেন না। সবাইকে বসে কথা বলতে হবে। তবে প্রথমদিনেই বিরোধীরা বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। সকালে অধিবেশন শুরুর আগে ডিএমকে সাংসদরা গান্ধী মূর্তির সামনে ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষা নিট করার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখান।

 

লোকসভা ও রাজ্যসভায় এ বার প্রশ্নোত্তরপর্ব নেই। জিরো আওয়ার একঘণ্টার জায়গায় আধঘণ্টা করা হয়েছে। ফলে বিরোধী দলগুলি রীতিমতো ক্ষুব্ধ। সূত্র: ডয়চে ভেলে

 

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
সহ সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : কাজী আবু তাহের মো. নাছির
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ,

বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৭১৪ ০৪৩ ১৯৮।
News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD