তেঁতুলিয়া নদীতে মা ইলিশ সংরক্ষণে ইউএন ‘র অভিযান

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

মা ইলিশ সংরক্ষণের জন্য পটুয়াখালীর দশমিনার তেতুঁলিয়া ও বুড়াগৌরাঙ্গ নদীতে অভিযানে নেমেছে প্রশাসন। উপজেলা প্রশাসন, মৎস্য অধিদপ্তর, নৌ-পুলিশ’সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে বেশ তৎপর দেখা যাচ্ছে জাতীয় সম্পদ রক্ষায়। এখন ইলিশ মাছ ধরার ওপর যে নিষেধাজ্ঞা চলছে সেটিকে তারা বেশ কঠোরভাবেই প্রয়োগ করছেন।

 

সোমবার (২১অক্টোবর) নিষেধাজ্ঞা শুরুর ১৩দিনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুভ্রা দাস এর নেতৃত্বে তেঁতুলিয়া নদীতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। দশমিনার হাজীর হাট ঘাট থেকে শুরু করে উপজেলার ৪০কিঃ মিঃ নদীতে অভিযানে নৌ-পুলিশ ইনচার্জ উত্তম, মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাহাবুব আলম ঝান্টা, কৃষি কর্মকর্তা বনি আমিন খান ও দশমিনা থানার এ এস আই মোশারেফ হোসেনসহ আরও অনেকে অভিযানে ছিলেন।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুভ্রা দাস বলেন, মা ইলিশ রক্ষায় কোন ছাড় দেয়া হবে না। “একটি ইলিশ একবারে গড়ে দশ থেকে বারো লক্ষ ডিম ছাড়ে। ভেবে দেখুন এটা কত বড় একটা বিষয়”। মা ইলিশ এবং জাটকা রক্ষার জন্য বছরের নির্দিষ্ট কিছু সময়ে মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকায় ইলিশের উৎপাদন অনেক বেড়েছে। ইলিশ মাছের উৎপাদন বাড়ানোর জন্যই বেশ জোরালোভাবে এ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসন, মৎস্য অধিদপ্তর, থানা, নৌ-পুলিশ সহ সংশ্লিষ্ট সবাই একসাথে কাজ করছে। দিন-রাত মিলিয়ে পালাক্রমে নদীতে টহল দেয়া হচ্ছে। ইউএনও শুভ্রা দাস মা ইলিশ রক্ষার জন্য এখন এক ধরনের ‘যুদ্ধ চলছে’। কারণ ইলিশ আমাদের জাতীয় সম্পদ। মা ইলিশ রক্ষায় দেশের প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত যেখানে আন্তরিক সেখানে এ সম্পদ কেন আমরা রক্ষা করতে পারব না।

 

তিনি আরো বলেন, নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন সময়ে ইলিশ আহরণ, বেচাকেনা, পরিবহন ও মজুুদ সম্প‚র্ণ বন্ধ থাকবে। আমরা দিনরাত নদীতে অভিযান পরিচালনা করছি। জাতীয় সম্পদ যারা বিনষ্ট করবে তারা দেশের শত্রু। তাদের কোন ছাড় দেয়া হবে না। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেউ নদীতে নামলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রতিদিন আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 

উপজেলা মৎস্য অফিস স‚ত্রে জানা যায়, গত ৯ অক্টোবর থেকে ২২ দিনের জন্য বন্ধ হয়ে গেছে ইলিশ শিকার-যা কার্যকর থাকবে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত। মা ইলিশ রক্ষায় সরকার এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। মা ইলিশের প্রজনন নিরাপদ করতে আশ্বিনের ভরা প‚র্ণিমা লক্ষ্য রেখে এ আদেশ জারি করা হয়েছে। এ সময়ে ডিম ছাড়ার জন্য ৭০-৮০ ভাগ মা ইলিশ গভীর সাগর ছেড়ে নদীর মিঠা পানিতে চলে আসে।

Facebook Comments

সর্বশেষ সংবাদ



» ফতুল্লায় শহীদ রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন

» ২জুন থেকে জমে উঠবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম বাজার

»  আজ সাংবাদিক কন্যা সুমাইয়া আক্তারের জন্মদিন

» ফতুল্লা মানব কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে মসজিদে জীবানুনাশক সামগ্রী বিতরণ

» ডিএনসির পৃথক মাদকবিরোধী অভিযানে ১০৪ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার-২

» চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রলির ধাক্কায় ১ জন গুরুতর আহতসহ নিহত-১

» বনগাঁর চাঁদাবাজিতে বন্ধ বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি রপ্তানি বানিজ্য

»  বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবলু চৌধুরী’র মৃত্যুতে পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি মাহবুবের শোক

» বীর মুক্তিযোদ্ধা আবিদ উদ্দীন ওরফে হাবলু চৌধুরীর ইন্তেকাল

» করোনা আক্রান্ত’র বাড়িতে খাদ্য ও ঔষধ পৌঁছে দিল ইউএনও মারুফুল আলম




প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
সহ সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : কাজী আবু তাহের মো. নাছির
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ,

বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৭১৪ ০৪৩ ১৯৮।
News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : শনিবার, ৩০ মে ২০২০, খ্রিষ্টাব্দ, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

তেঁতুলিয়া নদীতে মা ইলিশ সংরক্ষণে ইউএন ‘র অভিযান

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

মা ইলিশ সংরক্ষণের জন্য পটুয়াখালীর দশমিনার তেতুঁলিয়া ও বুড়াগৌরাঙ্গ নদীতে অভিযানে নেমেছে প্রশাসন। উপজেলা প্রশাসন, মৎস্য অধিদপ্তর, নৌ-পুলিশ’সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে বেশ তৎপর দেখা যাচ্ছে জাতীয় সম্পদ রক্ষায়। এখন ইলিশ মাছ ধরার ওপর যে নিষেধাজ্ঞা চলছে সেটিকে তারা বেশ কঠোরভাবেই প্রয়োগ করছেন।

 

সোমবার (২১অক্টোবর) নিষেধাজ্ঞা শুরুর ১৩দিনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুভ্রা দাস এর নেতৃত্বে তেঁতুলিয়া নদীতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। দশমিনার হাজীর হাট ঘাট থেকে শুরু করে উপজেলার ৪০কিঃ মিঃ নদীতে অভিযানে নৌ-পুলিশ ইনচার্জ উত্তম, মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাহাবুব আলম ঝান্টা, কৃষি কর্মকর্তা বনি আমিন খান ও দশমিনা থানার এ এস আই মোশারেফ হোসেনসহ আরও অনেকে অভিযানে ছিলেন।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুভ্রা দাস বলেন, মা ইলিশ রক্ষায় কোন ছাড় দেয়া হবে না। “একটি ইলিশ একবারে গড়ে দশ থেকে বারো লক্ষ ডিম ছাড়ে। ভেবে দেখুন এটা কত বড় একটা বিষয়”। মা ইলিশ এবং জাটকা রক্ষার জন্য বছরের নির্দিষ্ট কিছু সময়ে মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকায় ইলিশের উৎপাদন অনেক বেড়েছে। ইলিশ মাছের উৎপাদন বাড়ানোর জন্যই বেশ জোরালোভাবে এ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসন, মৎস্য অধিদপ্তর, থানা, নৌ-পুলিশ সহ সংশ্লিষ্ট সবাই একসাথে কাজ করছে। দিন-রাত মিলিয়ে পালাক্রমে নদীতে টহল দেয়া হচ্ছে। ইউএনও শুভ্রা দাস মা ইলিশ রক্ষার জন্য এখন এক ধরনের ‘যুদ্ধ চলছে’। কারণ ইলিশ আমাদের জাতীয় সম্পদ। মা ইলিশ রক্ষায় দেশের প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত যেখানে আন্তরিক সেখানে এ সম্পদ কেন আমরা রক্ষা করতে পারব না।

 

তিনি আরো বলেন, নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন সময়ে ইলিশ আহরণ, বেচাকেনা, পরিবহন ও মজুুদ সম্প‚র্ণ বন্ধ থাকবে। আমরা দিনরাত নদীতে অভিযান পরিচালনা করছি। জাতীয় সম্পদ যারা বিনষ্ট করবে তারা দেশের শত্রু। তাদের কোন ছাড় দেয়া হবে না। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেউ নদীতে নামলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রতিদিন আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 

উপজেলা মৎস্য অফিস স‚ত্রে জানা যায়, গত ৯ অক্টোবর থেকে ২২ দিনের জন্য বন্ধ হয়ে গেছে ইলিশ শিকার-যা কার্যকর থাকবে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত। মা ইলিশ রক্ষায় সরকার এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। মা ইলিশের প্রজনন নিরাপদ করতে আশ্বিনের ভরা প‚র্ণিমা লক্ষ্য রেখে এ আদেশ জারি করা হয়েছে। এ সময়ে ডিম ছাড়ার জন্য ৭০-৮০ ভাগ মা ইলিশ গভীর সাগর ছেড়ে নদীর মিঠা পানিতে চলে আসে।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
সহ সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : কাজী আবু তাহের মো. নাছির
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ,

বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৭১৪ ০৪৩ ১৯৮।
News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD