ফতুল্লার আলীগঞ্জ ও কুতুবপুরে মাদকের স্বর্গরাজ্য’ বন্ধ হচ্ছেনা মাদক ব্যবসা

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সাদ্দাম হোসেন শুভ :- দেশব্যাপী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাঁড়াশি অভিযানের মধ্যেই নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা থানাধীন কুতুবপুরে চলছে মাদকের বেচাকেনা। তবে, কিছুটা সতর্কতা অবলম্বন করেছেন মাদক ব্যবসায়ীরা।

 

নিজেদের পছন্দ মতো জায়গা ছাড়া কিংবা পরিচিতজন ছাড়া বিক্রি করছেন না মাদক। অনেকটা অপরিবর্তিত রয়েছে আলীগঞ্জ স্পট। এখানে ইয়াবা হাউজের খোঁজ মেলে উজ্জীবিত বাংলাদেশ অনুসন্ধানে। চলমান মাদক-বিরোধী অভিযানে অবস্থার সাময়িক পরিবর্তন হলেও স্থায়ী সমাধান নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন অপরাধ বিজ্ঞানীরা। কুতুবপুর ইউনিয়নের আলীগঞ্জ রেল লাইন ও আশপাশের এলাকা ।

 

দেশব্যাপী চলমান অভিযান অব্যাহত থাকলেও মাদক বিরোধী অভিযান তেমন চোখে পরেনি অতি পরিচিত আলীগঞ্জ মাদক কেনা-বেচার এই স্পটে। তাই দিন-রাত চলছে জমজমাট মাদকের আসর। শুধু বিক্রি নয়, এখানে রয়েছে ইয়াবা হাউজও। অনুসন্ধানের একপর্যায়ে মাদক-ক্রেতা সেজে এলাকার ভেতরে প্রবেশের সুযোগ মেলে। ভেতরে ঢোকার কিছুক্ষণের মধ্যে মধ্য বয়সী এক ব্যক্তি জানতে চান কি লাগবে। টাকা হলে নাকি সবকিছুই মেলে এখানে। কৌশলে জানা গেল, এখানকার সব ধরনের অপকর্মের খবরই জানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

 

সরেজমিনে ঘুরে একই চিত্র দেখা গেছে কুতুবপুরের অন্যান্য এলাকায়ও। অল্প চেষ্টাতেই মেলে মাদক।মাদকসেবীরা জানান, মাদক ছাড়তে চাই। কিন্তু আবার দেখা যায়, না খেলে খুবই খারাপ লাগে। কোনো কাজ করতে ভালো লাগে না। এখনো অনেক এলাকায় খুঁজলে পাওয়া যায়। গা ঢাকা দেয়া মাদক ব্যবসায়ীদের আওতায় আনতে না পারলে অবস্থার পরিবর্তন হবে না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় অভিভাবক মহল । তারা আরো বলেন, যেসব মাদকব্যবসায়ী আত্মগোপনে রয়েছেন। তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে শাস্তি দিতে হবে। সেই সঙ্গে যারা মাদকের খুচরা বিক্রেতা, তারাও এখন আত্মগোপনে। তাদেরকেও আইনে আওতায় নিয়ে আসতে হবে। অপরাধ বিজ্ঞানীরা বলছেন, দেশের ৭০ লাখ মাদক সেবনকারীর মধ্যে ১০ লাখ রয়েছেন পুরোপুরি আসক্ত। এদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা না করলে সমাজে অপরাধের মাত্রা তীব্র আকার ধারণ করার আশঙ্কা রয়েছে। তবে, অভিযানের সুফল পেতে হলে স্বচ্ছতা আনতে হবে আইন-প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর কাজে।

 

অপরাধ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ড. জিয়া রহমান বলেন, ‘সাধারণ মানুষের কল্যাণের কথা বিবেচনা করে এই অভিযান পরিচালনা করেছেন। কিন্তু যারা প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ী তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে।’ অন্যদিকে পুলিশ বলছে, ‘এবারের অভিযানে কাউকে ছাড় দেবেন না তারা। ‘প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন। এরপর থেকে অভিযানকে আমরাও ত্বরান্বিত করেছি।’

ফেসবুক মন্তব্য করুন

সর্বশেষ সংবাদ



» ধর্ষণ মামলার সাক্ষীকে মারধোরের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

» আড়পাঙ্গাশিয়া সা‌বেক চেয়ারম‌্যান হা‌কিম হাওলাদা‌রের ই‌ন্তেকাল

» বক্তাবলীতে জিয়ার বীর উত্তম খেতাব বাতিলে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

» আমতলী উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভা পন্ড’ দু’পক্ষের পাল্টাপাল্টি সংর্ঘষে আহত ১৫

» শামীম ওসমানের জন্মদিন উপলক্ষে খান মাসুদের দোয়া

» আলীরটেকে ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» সোনারগাঁয়ে বেপরোয়া গাড়ি ভেঙ্গে দিলো মসজিদের মিম্বর

» ফতুল্লায় ফোর মার্ডারঃ ২ জনের ফাঁসি, ৯ জনের যাবজ্জীবন

» ফতুল্লায় আফিয়া জালাল ফাউন্ডেশন ক্লিনিকের যাত্রা শুরু

» নড়াইলে বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখের ৮৫তম জন্মবার্ষিকী আগামীকাল




প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
ফোন: +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ।

News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : শুক্রবার, ৫ মার্চ ২০২১, খ্রিষ্টাব্দ, ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফতুল্লার আলীগঞ্জ ও কুতুবপুরে মাদকের স্বর্গরাজ্য’ বন্ধ হচ্ছেনা মাদক ব্যবসা

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

সাদ্দাম হোসেন শুভ :- দেশব্যাপী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাঁড়াশি অভিযানের মধ্যেই নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা থানাধীন কুতুবপুরে চলছে মাদকের বেচাকেনা। তবে, কিছুটা সতর্কতা অবলম্বন করেছেন মাদক ব্যবসায়ীরা।

 

নিজেদের পছন্দ মতো জায়গা ছাড়া কিংবা পরিচিতজন ছাড়া বিক্রি করছেন না মাদক। অনেকটা অপরিবর্তিত রয়েছে আলীগঞ্জ স্পট। এখানে ইয়াবা হাউজের খোঁজ মেলে উজ্জীবিত বাংলাদেশ অনুসন্ধানে। চলমান মাদক-বিরোধী অভিযানে অবস্থার সাময়িক পরিবর্তন হলেও স্থায়ী সমাধান নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন অপরাধ বিজ্ঞানীরা। কুতুবপুর ইউনিয়নের আলীগঞ্জ রেল লাইন ও আশপাশের এলাকা ।

 

দেশব্যাপী চলমান অভিযান অব্যাহত থাকলেও মাদক বিরোধী অভিযান তেমন চোখে পরেনি অতি পরিচিত আলীগঞ্জ মাদক কেনা-বেচার এই স্পটে। তাই দিন-রাত চলছে জমজমাট মাদকের আসর। শুধু বিক্রি নয়, এখানে রয়েছে ইয়াবা হাউজও। অনুসন্ধানের একপর্যায়ে মাদক-ক্রেতা সেজে এলাকার ভেতরে প্রবেশের সুযোগ মেলে। ভেতরে ঢোকার কিছুক্ষণের মধ্যে মধ্য বয়সী এক ব্যক্তি জানতে চান কি লাগবে। টাকা হলে নাকি সবকিছুই মেলে এখানে। কৌশলে জানা গেল, এখানকার সব ধরনের অপকর্মের খবরই জানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

 

সরেজমিনে ঘুরে একই চিত্র দেখা গেছে কুতুবপুরের অন্যান্য এলাকায়ও। অল্প চেষ্টাতেই মেলে মাদক।মাদকসেবীরা জানান, মাদক ছাড়তে চাই। কিন্তু আবার দেখা যায়, না খেলে খুবই খারাপ লাগে। কোনো কাজ করতে ভালো লাগে না। এখনো অনেক এলাকায় খুঁজলে পাওয়া যায়। গা ঢাকা দেয়া মাদক ব্যবসায়ীদের আওতায় আনতে না পারলে অবস্থার পরিবর্তন হবে না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় অভিভাবক মহল । তারা আরো বলেন, যেসব মাদকব্যবসায়ী আত্মগোপনে রয়েছেন। তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে শাস্তি দিতে হবে। সেই সঙ্গে যারা মাদকের খুচরা বিক্রেতা, তারাও এখন আত্মগোপনে। তাদেরকেও আইনে আওতায় নিয়ে আসতে হবে। অপরাধ বিজ্ঞানীরা বলছেন, দেশের ৭০ লাখ মাদক সেবনকারীর মধ্যে ১০ লাখ রয়েছেন পুরোপুরি আসক্ত। এদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা না করলে সমাজে অপরাধের মাত্রা তীব্র আকার ধারণ করার আশঙ্কা রয়েছে। তবে, অভিযানের সুফল পেতে হলে স্বচ্ছতা আনতে হবে আইন-প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর কাজে।

 

অপরাধ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ড. জিয়া রহমান বলেন, ‘সাধারণ মানুষের কল্যাণের কথা বিবেচনা করে এই অভিযান পরিচালনা করেছেন। কিন্তু যারা প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ী তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে।’ অন্যদিকে পুলিশ বলছে, ‘এবারের অভিযানে কাউকে ছাড় দেবেন না তারা। ‘প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন। এরপর থেকে অভিযানকে আমরাও ত্বরান্বিত করেছি।’

ফেসবুক মন্তব্য করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
ফোন: +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ।

News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD