কুতুবপুরের অপরাধযজ্ঞের মুকুটবিহীন সম্রাট এরা…!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়ন হ‌চ্ছে বিশাল পরিমানের জনবহুল একটি ইউনিয়ন।

 

অার এই ইউ‌নিয়‌নে ভালো কাজ এবং ভালো লোকের বসবাসের যোগ্য এ এলাকাটি মুষ্টিমেয় কিছু মাদক ব্যবসায়ী,চুরি ছিনতাই কাজে জড়িত থাকা ব্যক্তিদের নিয়ন্ত্রনে। তাদেরকে অদৃশ্যভাবে ওতপ্রোতভাবে সহযোগিতা করছে সমাজের নামধারী কিছু সুশীল ও প্রভাবশালী ব্যক্তি।

 

কুতুবপুর ইউনিয়নটি সবসময়ই আলোচনা থাকে ভালোর চেয়ে মন্দ কাজ আর মন্দ ব্যক্তিদের বিভিন্ন অপকর্মের ফলে।

 

গত ৪/৫ দিন পুর্বেও উক্ত ইউপির নন্দলালপুর সংলগ্ন ভাবিরবাজার এলাকায় ঘটে এক অনাকাংখিত মারামারির ঘটনা।

 

যেই ঘটনার খলনায়কের ভুমিকা পালন করেছেন মেডিকেল গলির বাসিন্দা ইদ্রিসের ছেলে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে মেম্বার পদপ্রার্থী ও গ্যারেজ ব্যবসার অন্তরালে জুয়া ও মাদকের হাট পরিচালনাকারী মো.জুয়েল শেখ। তার সাথে আরো রয়েছে নয়ামাটি রেললাইন এলাকার হাফিজুর রহমানের ছেলে শরীফ ওরফে গাঞ্জা শরীফ,দেলপাড়া টাওয়ার পাড় এলাকার তুষার আহমেদ,নয়ামাটি রেললাইন এলাকার মতিউর রহমানের ছেলে মুন্না ওরফে লোকাল মুন্না,বউবাজার বটতলা এলাকার রাকিব ওরফে ডিজে রাকিব,নয়ামাটি ভাবিবাজার এলাকার আবদুর রাজ্জাকের ছেলে মো.স্বাধীন আহমেদ জয় উল্লেখযোগ্য। এদের মধ্যে স্বাধীনের বিরুদ্ধে ফতুল্লা ম‌ডেল থানায় ক‌য়েক‌টি মামলাও রয়েছে।

 

স্থানীয়দের দাবী,এদের মধ্যে জুয়েল শেখ একজন যিনি বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকলে স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সাথে সুসর্ম্পক বজায় ইটবালু- সিমেন্টের ব্যবসার পাশাপাশি তার একটি গ্যারেজের ভেতরে গাড়ি রাখার অন্তরালে জুয়া ও মাদকের হাট বসায় নিয়মিতভাবে। বিএনপি সরকার ক্ষমতা থাকাকালীন জামাত শিবিরের সক্রিয় সদস্য বর্তমানেও বিএনপির রাজনীতিতে সম্পৃক্ত জুয়েল নিজেকে কখনো সাংবাদিক, কখনো রাজনৈতিক ব্যক্তি, কখনো বা মেম্বার পরিচয়ে একটি ট্রাকের গ্যারেজের অন্তরালে গড়ে তুলেছেন অপরাধের স্বর্গরাজ্য।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জুয়া ও মাদকের গডফাদার জুয়েলের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় জামাত শিবিরের গ্রেনেড বিস্ফোরণ, চাঁদাবাজী, মারামারি সহ একাধিক মামলার আসামি নন্দলালপুর, মেডিকেল গলির ইদ্রিস মিয়ার ছেলে এই জুয়েল।

 

সর্বশেষ জেল থেকে বেড়িয়ে নিজের অপকর্ম ঢাকতে হয়ে যায় সাংবাদিক। নুন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকলেও সরকারি অনুমোদনহীন একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের কার্ড নিয়ে নিজেকে পত্রিকার সহ-সম্পাদক পরিচয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন জুয়া ও মাদকের পাইকারি বেচাকেনা।

 

অন্যদিকে নয়ামাটি ভাবিবাজার এলাকার আবদুর রাজ্জাকের ছেলে মো.স্বাধীন আহমেদ জয় হলেন অপর এক স্বনামধন্য অপরাধী। যার বিরুদ্ধে চুরি,ছিনতাই,মাদক বিক্রিসহ এমন কোন কর্ম বাদ নেই যার সঙ্গে ওর সর্ম্পক নেই। নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য এ স্বাধীনসহ তার গ্রুপের প্রতিটি সদস্য অধিক বেপরোয়া রুপ ধারন করতে পারে। নয়ামাটি রেললাইন এলাকার হাফিজুর রহমানের ছেলে মো.শরীফ ওরয়ে গাঞ্জা শরীফ আরেক শীর্ষ অপরাধীর মধ্যে অন্যতম। গত ৪/৫ দিন পুর্বে নন্দলালপুর এলাকায় যে মারামারির ঘটনা ঘটে সেখানে জুয়েল শেখের পক্ষে প্রতিপক্ষের উপর ধারালো দা নিয়ে হামলা চালায়। সেদিনের সেই ঘটনায় দু’জন কুপিয়ে গুরুতর আহত করে দূর্জয় ও তানভীর নামে দুই যুবককে। দেলপাড়া টাওয়ার পাড় এলাকার তুষার আহমেদ,নয়ামাটি রেললাইন এলাকার মতিউর রহমানের ছেলে মুন্না ওরফে লোকাল মুন্না,বউবাজার বটতলা এলাকার রাকিব ওরফে ডিজে রাকিব। এ গ্রুপের অপর দুই সদস্য। যাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ স্থানীয়রা। যাদের সবাইকে কুতুবপুরের প্রত্যন্ত জনসাধারন অপরাধযজ্ঞের মুকুটবিহীন সম্রাট হিসেবেই চেনেন।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই বলেন, আমরা বাড়ি-ঘর ক্রয় করে স্থানীয় হয়ে বিপাকে পড়েছি। নিজেদের নিয়ে তেমন চিন্তা না হলে দুঃশ্চিন্তা করতে হয় আমাদের ঘরে থাকা সন্তানগুলোকে নিয়ে। ওরা যে প্রকার অপরাধযজ্ঞ করে আবার মরননেশা মাদক বিক্রি করছে তা দেখে আমাদের সন্তানরা যে ওদের মত বিপথগামী হবে না তা বলা মুশকিল। স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তির ছত্রছায়ায় ওরা যেভাবে বেপরোয়া হয়ে পড়েছে তার লাগাম কে টেনে ধরবে তা আমরা বলতে পারছিনা। যদি এখনই ওদের অপরাধের লাগাম টেনে না ধরা যায় তাহলে অচিরেই পুরো কুতুবপুর ইউনিয়নটি অপরাধের স্বর্গরাজ্যে রুপান্তরিত হয়ে পড়বে। আমরা ওদের হাত থেকে বাচঁতে জেলা পুলিশ সুপার ও র‌্যাবের সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

সর্বশেষ সংবাদ



» আমতলীতে বিদ্যালয় মাঠে জলাবদ্ধতা খেলাধুলা থেকে বঞ্চিত শিক্ষার্থীরা

» ভ্যাকসিন না নিলে কেউ গণপরিবহনে চলাচল করতে পারবেন না!

» উত্তরা থেকে পাঁচ হাজার পিস ইয়াবাসহ স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

» করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২৩৫ জনের মৃত্যু’ মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২১ হাজার ৩৯৭ জন

» শার্শায় বিরল রোগে আক্রান্ত সন্তানকে বাঁচাতে অসহায় মায়ের আকুতি

» ফতুল্লায় বিপুল পরিমান মাদকসহ গ্রেফতার ৩

» বঙ্গবন্ধুর বেশ ধারন করা তথাকথিত সেই আরুক মুন্সী এখন কয়েকটি ভূইফোর সংগঠনের নেতা

» দশমিনায় স্বামী নিখোঁজ’ স্ত্রী’র জিডি

» হবিগঞ্জের নবীগঞ্জের মোবাইল চোরের সদস্য ধরাশায়ী’ মুচলেকা দিয়ে মুক্তি

» ঝিনাইদহ ট্রাফিক পুলিশ করোনাকালীন দু, মাসে ২৫ লাখ টাকা জরিমানা আদায়

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪৬৩২৫০৯, ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ।

News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : বুধবার, ৪ আগস্ট ২০২১, খ্রিষ্টাব্দ, ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কুতুবপুরের অপরাধযজ্ঞের মুকুটবিহীন সম্রাট এরা…!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়ন হ‌চ্ছে বিশাল পরিমানের জনবহুল একটি ইউনিয়ন।

 

অার এই ইউ‌নিয়‌নে ভালো কাজ এবং ভালো লোকের বসবাসের যোগ্য এ এলাকাটি মুষ্টিমেয় কিছু মাদক ব্যবসায়ী,চুরি ছিনতাই কাজে জড়িত থাকা ব্যক্তিদের নিয়ন্ত্রনে। তাদেরকে অদৃশ্যভাবে ওতপ্রোতভাবে সহযোগিতা করছে সমাজের নামধারী কিছু সুশীল ও প্রভাবশালী ব্যক্তি।

 

কুতুবপুর ইউনিয়নটি সবসময়ই আলোচনা থাকে ভালোর চেয়ে মন্দ কাজ আর মন্দ ব্যক্তিদের বিভিন্ন অপকর্মের ফলে।

 

গত ৪/৫ দিন পুর্বেও উক্ত ইউপির নন্দলালপুর সংলগ্ন ভাবিরবাজার এলাকায় ঘটে এক অনাকাংখিত মারামারির ঘটনা।

 

যেই ঘটনার খলনায়কের ভুমিকা পালন করেছেন মেডিকেল গলির বাসিন্দা ইদ্রিসের ছেলে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে মেম্বার পদপ্রার্থী ও গ্যারেজ ব্যবসার অন্তরালে জুয়া ও মাদকের হাট পরিচালনাকারী মো.জুয়েল শেখ। তার সাথে আরো রয়েছে নয়ামাটি রেললাইন এলাকার হাফিজুর রহমানের ছেলে শরীফ ওরফে গাঞ্জা শরীফ,দেলপাড়া টাওয়ার পাড় এলাকার তুষার আহমেদ,নয়ামাটি রেললাইন এলাকার মতিউর রহমানের ছেলে মুন্না ওরফে লোকাল মুন্না,বউবাজার বটতলা এলাকার রাকিব ওরফে ডিজে রাকিব,নয়ামাটি ভাবিবাজার এলাকার আবদুর রাজ্জাকের ছেলে মো.স্বাধীন আহমেদ জয় উল্লেখযোগ্য। এদের মধ্যে স্বাধীনের বিরুদ্ধে ফতুল্লা ম‌ডেল থানায় ক‌য়েক‌টি মামলাও রয়েছে।

 

স্থানীয়দের দাবী,এদের মধ্যে জুয়েল শেখ একজন যিনি বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকলে স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সাথে সুসর্ম্পক বজায় ইটবালু- সিমেন্টের ব্যবসার পাশাপাশি তার একটি গ্যারেজের ভেতরে গাড়ি রাখার অন্তরালে জুয়া ও মাদকের হাট বসায় নিয়মিতভাবে। বিএনপি সরকার ক্ষমতা থাকাকালীন জামাত শিবিরের সক্রিয় সদস্য বর্তমানেও বিএনপির রাজনীতিতে সম্পৃক্ত জুয়েল নিজেকে কখনো সাংবাদিক, কখনো রাজনৈতিক ব্যক্তি, কখনো বা মেম্বার পরিচয়ে একটি ট্রাকের গ্যারেজের অন্তরালে গড়ে তুলেছেন অপরাধের স্বর্গরাজ্য।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জুয়া ও মাদকের গডফাদার জুয়েলের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় জামাত শিবিরের গ্রেনেড বিস্ফোরণ, চাঁদাবাজী, মারামারি সহ একাধিক মামলার আসামি নন্দলালপুর, মেডিকেল গলির ইদ্রিস মিয়ার ছেলে এই জুয়েল।

 

সর্বশেষ জেল থেকে বেড়িয়ে নিজের অপকর্ম ঢাকতে হয়ে যায় সাংবাদিক। নুন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকলেও সরকারি অনুমোদনহীন একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের কার্ড নিয়ে নিজেকে পত্রিকার সহ-সম্পাদক পরিচয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন জুয়া ও মাদকের পাইকারি বেচাকেনা।

 

অন্যদিকে নয়ামাটি ভাবিবাজার এলাকার আবদুর রাজ্জাকের ছেলে মো.স্বাধীন আহমেদ জয় হলেন অপর এক স্বনামধন্য অপরাধী। যার বিরুদ্ধে চুরি,ছিনতাই,মাদক বিক্রিসহ এমন কোন কর্ম বাদ নেই যার সঙ্গে ওর সর্ম্পক নেই। নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য এ স্বাধীনসহ তার গ্রুপের প্রতিটি সদস্য অধিক বেপরোয়া রুপ ধারন করতে পারে। নয়ামাটি রেললাইন এলাকার হাফিজুর রহমানের ছেলে মো.শরীফ ওরয়ে গাঞ্জা শরীফ আরেক শীর্ষ অপরাধীর মধ্যে অন্যতম। গত ৪/৫ দিন পুর্বে নন্দলালপুর এলাকায় যে মারামারির ঘটনা ঘটে সেখানে জুয়েল শেখের পক্ষে প্রতিপক্ষের উপর ধারালো দা নিয়ে হামলা চালায়। সেদিনের সেই ঘটনায় দু’জন কুপিয়ে গুরুতর আহত করে দূর্জয় ও তানভীর নামে দুই যুবককে। দেলপাড়া টাওয়ার পাড় এলাকার তুষার আহমেদ,নয়ামাটি রেললাইন এলাকার মতিউর রহমানের ছেলে মুন্না ওরফে লোকাল মুন্না,বউবাজার বটতলা এলাকার রাকিব ওরফে ডিজে রাকিব। এ গ্রুপের অপর দুই সদস্য। যাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ স্থানীয়রা। যাদের সবাইকে কুতুবপুরের প্রত্যন্ত জনসাধারন অপরাধযজ্ঞের মুকুটবিহীন সম্রাট হিসেবেই চেনেন।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই বলেন, আমরা বাড়ি-ঘর ক্রয় করে স্থানীয় হয়ে বিপাকে পড়েছি। নিজেদের নিয়ে তেমন চিন্তা না হলে দুঃশ্চিন্তা করতে হয় আমাদের ঘরে থাকা সন্তানগুলোকে নিয়ে। ওরা যে প্রকার অপরাধযজ্ঞ করে আবার মরননেশা মাদক বিক্রি করছে তা দেখে আমাদের সন্তানরা যে ওদের মত বিপথগামী হবে না তা বলা মুশকিল। স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তির ছত্রছায়ায় ওরা যেভাবে বেপরোয়া হয়ে পড়েছে তার লাগাম কে টেনে ধরবে তা আমরা বলতে পারছিনা। যদি এখনই ওদের অপরাধের লাগাম টেনে না ধরা যায় তাহলে অচিরেই পুরো কুতুবপুর ইউনিয়নটি অপরাধের স্বর্গরাজ্যে রুপান্তরিত হয়ে পড়বে। আমরা ওদের হাত থেকে বাচঁতে জেলা পুলিশ সুপার ও র‌্যাবের সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪৬৩২৫০৯, ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ।

News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD