ফতুল্লায় প্রেমকে শিকলে বাঁধার চেষ্টা, বাবা-মা গ্রেফতার!

উজ্জীবিত বিডি ডটকম:- প্রেম মানে না উঁচু-নিঁচু,জাত পাত। প্রেমের কারণে অনেকে ছেড়েছেন সংসার,ধর্ম। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে ফতুল্লার দাপা সেহাচর এলাকায়। কলেজ ছাত্রী নুপুর (ছদ্মনাম) ইসলাম ধর্মের।  সিদ্ধিরশ্বরী কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্রী সে। তারে সাথে প্রেম হয় সনাতন ধর্মের একটি ছেলের সাথে। 

 

প্রেমিক মুসলমান হবে তাকে বিয়েও করবে। এমন আশ্বাসে প্রেমিকের সাথে  একাধিকবার শারিরীক সম্পর্কও হয় কলেজ ছাত্রীর। কিন্তু প্রেমিক আর মুসলমান হয়নি। ঘটনাটি জানতে পারে ছাত্রীর পরিবার। এরপর ঐ কলেজ ছাত্রীকে তারা শিকলে  বেঁধে রাখে। 

 

মঙ্গলবার রাতে শিকলে বাঁধা থাকাবস্থায় ছাত্রীটি জরুরী সেবা ৯৯৯ নাম্বারের কল করে। পরে পুলিশ ছাত্রীর বাসা থেকে শিকলে বাধা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। একজন প্রাপ্ত বয়স্কা তরুনীকে শিকলে বেঁধে রাখার অভিযোগে তার বাবা  বশির উদ্দিন ও মা ফরিদাকে মঙ্গল রাতে গ্রেফতার করে বুধবার আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ । 

 

কথায় বলে প্রেম স্বর্গীয়। এই প্রেম কখন যে কার সাথে হয়ে যায় তা কেউ বলতে পারে না। প্রেমের কারনে অনেকে সা¤্রাজ্য ছেড়েছেন। আবার অনেকে ছেড়েছেন ইহ জগতও। প্রেমে মানুষ অন্ধ হয়ে যায়। এ কথাও সর্বজন স্বীকৃত। কলেজ ছাত্রী নুপুর ইসলাম মুসলমান ধর্মের। কলেজে লেখা পড়া করাকালীন হিন্দু ধর্মের এক যুবকের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। 

 

সনাতন ধর্মের প্রেমিক ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করবে,এবং তাকে বিয়ে করবে। এমন আশ্বাসে নিজেকে ছাত্রী তার প্রেমিকের হাতে নিজেকে সমর্পণ করে। একাধিকবার স্থাপন করে শারিরীক সম্পর্ক। কিন্তু প্রেমিক আর মুসলমান ধর্ম গ্রহণ করেনি। নিজের অধিকার ফিরে পেতে ছাত্রীটি তার প্রেমিকের কাছে বার বার ছুটে গিয়েছিল। এক সময় বিষয়টি ছাত্রীর পরিবারের লোকজন জানতে পারে। 

 

আর এরপর থেকেই তাকে তার বাবা-মা শিকলে বেঁধে ঘরে আটকে রাখে। তরুনী কৌশলে একটি মোবাইল সংগ্রহ করে। এরপর জরুরী সেবা ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে নিজের বন্ধি দশার কথা জানান।  

 

এরপরই মঙ্গলবার রাতে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ ফতুল্লার দাপা সেহাচর এলাকার নিজ বাসা থেকে শিকলে বাধা অবস্থায় তরুনীকে উদ্ধার করে। তবে তরুনীর বাবা-মায়ের দাবী,তাদের সন্তান অবাধ্য। তাই তাকে গত ১৪  এপ্রিল থেকে শিকলে বেঁধে আটকে রাখা হয়েছিল। এ ঘটনায় তরুনীর বাবা ও মাকে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। 

 

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের অফিসার-ইনচার্জ মো. আসলাম হোসেন বলেন, জরুরী সেবা নাম্বার ৯৯৯  থেকে  ফোন পেয়ে ফতুল্লার দাপা শিহাচর শাহ জাহান রোলিং মিল এলাকার একটি ফ্ল্যাট থেকে তরুনীকে শিকলে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় তরুনীর বাবা ও মাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Facebook Comments

সর্বশেষ সংবাদ



» শৈলকুপায় হুইল চেয়ার ও স্মার্ট কার্ড বিতরণ করলেন-এমপি আব্দুল হাই

» ঝিনাইদহের দুর্গাপুর গ্রামে আদালতের নির্দেশ ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে প্রাচীর নির্মান

»  ভূয়া পরিচয়পত্রসহ শৈলকুপায় ভূয়া ডিবি ওসি আটক

» ঝিনাইদহের দোকানের টিন কেটে চুরি,সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়ল চোর

» বন্দরের গাজীপুর পেপার মিলে অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

» ফতুল্লায় দাবীকৃত চাঁদা না পেয়ে ইজিবাইক চালককে মারধর

» নদী দখলে প্রধান মন্ত্রীর ছবি সহ দলিল দেখালেও ছাড় দিতে না করেছেন প্রধান মন্ত্রী- মাসুদ রানা

» আজ মাগফিরাতের ৫ম দিবস আল্লাহর আদেশ -নিষেধ মেনে চলার নামই ইবাদত

» বিপিএলে আসছেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা?

» ঈদের ছুটির আগেই বেতন-বোনাস পাবেন সরকারি চাকরিজীবীরা



প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ

সহ- সম্পাদক : কামাল হোসেন খান

বার্তা সম্পাদক: সাদ্দাম হো‌সেন শুভ

উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন

 

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD



আজ : মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, খ্রিষ্টাব্দ, ৭ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফতুল্লায় প্রেমকে শিকলে বাঁধার চেষ্টা, বাবা-মা গ্রেফতার!

উজ্জীবিত বিডি ডটকম:- প্রেম মানে না উঁচু-নিঁচু,জাত পাত। প্রেমের কারণে অনেকে ছেড়েছেন সংসার,ধর্ম। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে ফতুল্লার দাপা সেহাচর এলাকায়। কলেজ ছাত্রী নুপুর (ছদ্মনাম) ইসলাম ধর্মের।  সিদ্ধিরশ্বরী কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্রী সে। তারে সাথে প্রেম হয় সনাতন ধর্মের একটি ছেলের সাথে। 

 

প্রেমিক মুসলমান হবে তাকে বিয়েও করবে। এমন আশ্বাসে প্রেমিকের সাথে  একাধিকবার শারিরীক সম্পর্কও হয় কলেজ ছাত্রীর। কিন্তু প্রেমিক আর মুসলমান হয়নি। ঘটনাটি জানতে পারে ছাত্রীর পরিবার। এরপর ঐ কলেজ ছাত্রীকে তারা শিকলে  বেঁধে রাখে। 

 

মঙ্গলবার রাতে শিকলে বাঁধা থাকাবস্থায় ছাত্রীটি জরুরী সেবা ৯৯৯ নাম্বারের কল করে। পরে পুলিশ ছাত্রীর বাসা থেকে শিকলে বাধা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। একজন প্রাপ্ত বয়স্কা তরুনীকে শিকলে বেঁধে রাখার অভিযোগে তার বাবা  বশির উদ্দিন ও মা ফরিদাকে মঙ্গল রাতে গ্রেফতার করে বুধবার আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ । 

 

কথায় বলে প্রেম স্বর্গীয়। এই প্রেম কখন যে কার সাথে হয়ে যায় তা কেউ বলতে পারে না। প্রেমের কারনে অনেকে সা¤্রাজ্য ছেড়েছেন। আবার অনেকে ছেড়েছেন ইহ জগতও। প্রেমে মানুষ অন্ধ হয়ে যায়। এ কথাও সর্বজন স্বীকৃত। কলেজ ছাত্রী নুপুর ইসলাম মুসলমান ধর্মের। কলেজে লেখা পড়া করাকালীন হিন্দু ধর্মের এক যুবকের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। 

 

সনাতন ধর্মের প্রেমিক ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করবে,এবং তাকে বিয়ে করবে। এমন আশ্বাসে নিজেকে ছাত্রী তার প্রেমিকের হাতে নিজেকে সমর্পণ করে। একাধিকবার স্থাপন করে শারিরীক সম্পর্ক। কিন্তু প্রেমিক আর মুসলমান ধর্ম গ্রহণ করেনি। নিজের অধিকার ফিরে পেতে ছাত্রীটি তার প্রেমিকের কাছে বার বার ছুটে গিয়েছিল। এক সময় বিষয়টি ছাত্রীর পরিবারের লোকজন জানতে পারে। 

 

আর এরপর থেকেই তাকে তার বাবা-মা শিকলে বেঁধে ঘরে আটকে রাখে। তরুনী কৌশলে একটি মোবাইল সংগ্রহ করে। এরপর জরুরী সেবা ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে নিজের বন্ধি দশার কথা জানান।  

 

এরপরই মঙ্গলবার রাতে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ ফতুল্লার দাপা সেহাচর এলাকার নিজ বাসা থেকে শিকলে বাধা অবস্থায় তরুনীকে উদ্ধার করে। তবে তরুনীর বাবা-মায়ের দাবী,তাদের সন্তান অবাধ্য। তাই তাকে গত ১৪  এপ্রিল থেকে শিকলে বেঁধে আটকে রাখা হয়েছিল। এ ঘটনায় তরুনীর বাবা ও মাকে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। 

 

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের অফিসার-ইনচার্জ মো. আসলাম হোসেন বলেন, জরুরী সেবা নাম্বার ৯৯৯  থেকে  ফোন পেয়ে ফতুল্লার দাপা শিহাচর শাহ জাহান রোলিং মিল এলাকার একটি ফ্ল্যাট থেকে তরুনীকে শিকলে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় তরুনীর বাবা ও মাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ





সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ

সহ- সম্পাদক : কামাল হোসেন খান

বার্তা সম্পাদক: সাদ্দাম হো‌সেন শুভ

উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন

 

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD