ভূট্টা ফসলে ফল আর্মি ওয়ার্ম আক্রমনে কৃষকদের সতর্ক করলো উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

উজ্জীবিত বাংলাদেশ:- পৃথিবীব্যাপি ‘ফল আর্মি ওয়ার্ম ’ পোকাটি সংগনিরোধ বালাই হিসেবে পরিচত এবং ডিম, কীড়া পুত্তলি অবস্থায় বিভিন্ন উদ্ভিদ ও উদ্ভিদজাত উপাদান যেমন : চারা, কলম, কন্দ,চারা সংলগ্ন মাটি ইত্যাদির মাধ্যমে বিস্তারলাভ করতে পারে। পূর্ণাঙ্গ পোকা অনেক দূর পর্যন্ত উড়তে পারে এমনকি ঝড়ো বাতাসের সাথে কয়েকশত কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তারলাভ করতে পারে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে আফ্রিকা হয়ে বর্তমানে এশিয়ার বিভিন্ন দেশ বিশেষত: ভারত ও শ্রীলঙ্কায় এ পোকাটির আক্রমণ পরিলক্ষিত হয়েছে। ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহ হতে বিএআরআই কর্তৃক বাংলাদেশের উত্তর ও পশ্চিম অঞ্চলের জেলাসমূহে কয়েকটি ফসলে ফেরোমন ফাঁদ এদের পূর্ণাঙ্গ পোকার উপস্থিতি রেকর্ড করা হয়েছে। এ ছাড়াও শেরপুর, বগুড়া এবং দামুড়হুদা, চুয়াডাঙ্গায় ভূট্টা ফসলে এদের আক্রমণ পরিলক্ষিত হয়েছে।এটি ভূট্টা, সরগম, তুলা, বাদাম, তামাক বিভিন্ন ধরনের ফল ও সবজিসহ প্রায় ৮০টি ফসলে আক্রমণ করে থাকে। তবে ভূট্টা ফসলে এর আক্রমণের হার সর্বাধিক।
পোকাটি কীড়া অবস্থায় গাছের পাতা ও ফল খেয়ে থাকে। কীড়ার প্রাথিমিক অবস্থায় এদের খাদ্য চাহিদা কম থাকে, তবে শেষ ধাপ সমূহে খাদ্য চাহিদা প্রায় ৫০ গুন বৃদ্ধি পায়। সে কারনে কীড়ার ৪-৬ ধাপসমূহ অর্থাৎ কীড়া পূর্ণাঙ্গ হওয়ার আগে রাক্ষুসে হয়ে উঠে এবং ফসলের ব্যাপক ক্ষতি করে। এমনকি এক রাত্রের মধ্যে এরা সমস্ত ফসল বিনষ্ট করে ফেলতে পারে। পোকাটির কীড়ার দেহের উপরিভাগে দুপাশে লম্বালম্বিভাবে গাঢ় রংয়ের দাগ রয়েছে। তলপেটের ৮ম অংশের উপরিভাগে চারটি কালো দাগ রয়েছে। মাথায় উল্টা ণ অক্ষরের মধ্যে জালের মত দাগ রয়েছে।

বর্তমানে ভূুট্টা ফসল বৃদ্ধি স্তরে (ঠবমবঃধঃরাব) রয়েছে । ফসলের এ স্তরে ‘ফল আর্মি ওয়ার্ম ’ পোকার আক্রমণ দেখা দিতে পারে, যা বিভিন্ন মাধ্যম থেকে জানা যায়। এরই পরিপেক্ষিতে পোকাটির আক্রমন যেন ভূট্টা ফসলের উৎপাদন ও বৃদ্ধি প্রক্রিয়া ব্যহত না হয় সেজন্য উপজেলার ভূট্টা আবাদকৃত এলাকায় সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের সজাগ দৃষ্টি রাখা এবং পোকার উপস্থিতি দেখা গেলে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন ও অবহিতকরনের জন্য উপজেলা কৃষি অফিসার সকলকে অনুরোধ করে। তদোপরি, ১৫/০১/২০১৯ ইং তারিখে গোগনগর ইউনিয়নের বাড়িরটেক ব্লকের এসএএও মোসাঃ আফরোজা খাতুন তার ব্লকের প্রনোদনায় ভূট্টার ফল আর্মি ওয়ার্ম এর পূর্নাঙ্গ পোকা পাওয়ার সাথে সাথে প্লট পরিদর্শন করে আক্রান্ত গাছ হতে কীড়া চিহ্নিত করে উপজেলা কৃষি অফিসকে অবগত করেন।

 

উপজেলা কৃষি অফিসার তার অফিসের সংশ্লিষ্টদের নিয়ে গোগনগর ইউনিয়নের ৩ টি ব্লক সরোজমিনে পরিদর্শন করে। পরিদর্শনকালে গোগনগর ইউনিয়নের সম্মানিত চেয়ারম্যান, মেম্বার, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের এসএএও, বালাইনাশক কোম্পানির প্রতিনিধি, স্থানিয় কীটনাশক ডিলার ও ভূট্টা চাষীরা উপস্থিত ছিলেন। পরিদর্শন টিম সরেজমিনে ভূট্টার প্লট পরিদর্শন করে ফল আর্মিওয়ার্ম পোকার আক্রমন বিষয়ে নিশ্চিত হয় এবং ফল আর্মিওয়ার্ম পোকার আক্রমনের তীব্রতা ১০% পাওয়া যায়। তাৎক্ষনিকভাবে জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় কীটনাশক ডিলার, এসএএও ও সংশ্লিষ্টদের সমন্বয়ে স্কোয়াড গঠনের মাধ্যমে ফল আর্মিওয়ার্ম দমনের কার্যক্রম গ্রহন করা হয়।

 

আক্রান্ত গাছ হতে ডিম বা দলাবদ্ধ কীড়া চিহ্নিত করে পিষে মেরে ফেলতে হবে বা মাটির নিচে কমপক্ষে এক ফুট পরিমান গর্ত করে পুতেঁ ফেলতে হবে।প্রাথমিক আক্রমণ দেখা দেয়ার সাথে সাথে ফল আর্মিওয়ার্মের ফেরোমন ফাঁদ (বিগাপ্রতি ৫টি হারে) জমিতে স্থাপন করতে হবে।এছাড়া প্রাথমিক আক্রমণের সাথে সাথে জৈব বালাইনাশক এসএপিভি (প্রতি লিটার পানিতে ০.২ গ্রাম হিসেবে মিশিয়ে) ১০ দিন পরপর ২-৩ বার জমিতে প্রয়োগ করতে হবে।

 

এরই প্রেক্ষিতে অদ্য ২৩/১/১৯ ইং তারিখ উপ-পরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, নারায়ণগঞ্জ, জনাব কাজী হাবীবুর রহমান, অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (উদ্ভিদ সংরক্ষণ), জনাব মোঃ মুরাদুল হাসান এবং উপজেলা কৃষি অফিসার, জনাব মোঃ আাব্দুুল গফ্ফার উক্ত মাঠ পরিদর্শন করেন এবং আক্রান্ত প্লটে পোকা দমন প্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি অফিসার জনাব মোঃ আাব্দুুল গফফার বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, কীটনাশক ডিলার ও কৃষকদের সমন্বয়ে গ্রুপ মিটিং করে সচেতনতা বৃদ্ধি করা হয় এবং ফল আর্মিওর্য়াম বিষয়ক লিফলেট বিতরন করার পাশাপাশি, স্থানীয় কীটনাশক ডিলারের দোকান পরিদর্শন করে এসএমপিভি, ট্রেসার, নাইট্রো, ভিরতাকো, কারজেন ইত্যাদি জৈব ও রাসায়নিক বালাইনাশকের সরবরাহ নিশ্চিত করা হয়।এছাড়া, উপজেলা পরিষদের সদস্যদের সাথে ভূট্টা ফসলের ফল আর্মিওয়ার্ম পোকার আক্রমন সমন্ধে অবহিত করা হয় এবং প্রয়োজনে এ বিষয়ে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ করা হয়।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

সর্বশেষ সংবাদ



» ফতুল্লায় ৫’শ পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করেন আবু মোঃ শরিফুল হক

» দেশ-বিদেশের সবাইকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মাসুম আহাম্মেদ রাজ

» দেশ-বিদেশের সবাইকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোঃ শহীদুল ইসলাম টিটু

» দেশ-বিদেশের সবাইকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জহিরুল ইসলাম জিয়া (খান মোঃ গেন্দু)

» রূপগঞ্জে এক হাজার দুস্থ পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ

» কুতুবপু‌রে উত্তর রসুলপুর সচেতন নাগরিক সমাজের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ

» প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঈদ উপহার পেল চাওড়া ইউনিয়নের ৪৬৫০টি পরিবার

» ফতুল্লায় সাংবাদিক রাসেলের অফিসে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

» পারফেক্ট ফ্রেন্ডস অফ আলীগঞ্জের ঈদ সামগ্রী বিতরণ

» চুরির এক দিন পরে চুরি হওয়া গাড়ীসহ চোর গ্রেফতার




প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪৬৩২৫০৯, ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ।

News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : বুধবার, ১২ মে ২০২১, খ্রিষ্টাব্দ, ২৯শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ভূট্টা ফসলে ফল আর্মি ওয়ার্ম আক্রমনে কৃষকদের সতর্ক করলো উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

উজ্জীবিত বাংলাদেশ:- পৃথিবীব্যাপি ‘ফল আর্মি ওয়ার্ম ’ পোকাটি সংগনিরোধ বালাই হিসেবে পরিচত এবং ডিম, কীড়া পুত্তলি অবস্থায় বিভিন্ন উদ্ভিদ ও উদ্ভিদজাত উপাদান যেমন : চারা, কলম, কন্দ,চারা সংলগ্ন মাটি ইত্যাদির মাধ্যমে বিস্তারলাভ করতে পারে। পূর্ণাঙ্গ পোকা অনেক দূর পর্যন্ত উড়তে পারে এমনকি ঝড়ো বাতাসের সাথে কয়েকশত কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তারলাভ করতে পারে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে আফ্রিকা হয়ে বর্তমানে এশিয়ার বিভিন্ন দেশ বিশেষত: ভারত ও শ্রীলঙ্কায় এ পোকাটির আক্রমণ পরিলক্ষিত হয়েছে। ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহ হতে বিএআরআই কর্তৃক বাংলাদেশের উত্তর ও পশ্চিম অঞ্চলের জেলাসমূহে কয়েকটি ফসলে ফেরোমন ফাঁদ এদের পূর্ণাঙ্গ পোকার উপস্থিতি রেকর্ড করা হয়েছে। এ ছাড়াও শেরপুর, বগুড়া এবং দামুড়হুদা, চুয়াডাঙ্গায় ভূট্টা ফসলে এদের আক্রমণ পরিলক্ষিত হয়েছে।এটি ভূট্টা, সরগম, তুলা, বাদাম, তামাক বিভিন্ন ধরনের ফল ও সবজিসহ প্রায় ৮০টি ফসলে আক্রমণ করে থাকে। তবে ভূট্টা ফসলে এর আক্রমণের হার সর্বাধিক।
পোকাটি কীড়া অবস্থায় গাছের পাতা ও ফল খেয়ে থাকে। কীড়ার প্রাথিমিক অবস্থায় এদের খাদ্য চাহিদা কম থাকে, তবে শেষ ধাপ সমূহে খাদ্য চাহিদা প্রায় ৫০ গুন বৃদ্ধি পায়। সে কারনে কীড়ার ৪-৬ ধাপসমূহ অর্থাৎ কীড়া পূর্ণাঙ্গ হওয়ার আগে রাক্ষুসে হয়ে উঠে এবং ফসলের ব্যাপক ক্ষতি করে। এমনকি এক রাত্রের মধ্যে এরা সমস্ত ফসল বিনষ্ট করে ফেলতে পারে। পোকাটির কীড়ার দেহের উপরিভাগে দুপাশে লম্বালম্বিভাবে গাঢ় রংয়ের দাগ রয়েছে। তলপেটের ৮ম অংশের উপরিভাগে চারটি কালো দাগ রয়েছে। মাথায় উল্টা ণ অক্ষরের মধ্যে জালের মত দাগ রয়েছে।

বর্তমানে ভূুট্টা ফসল বৃদ্ধি স্তরে (ঠবমবঃধঃরাব) রয়েছে । ফসলের এ স্তরে ‘ফল আর্মি ওয়ার্ম ’ পোকার আক্রমণ দেখা দিতে পারে, যা বিভিন্ন মাধ্যম থেকে জানা যায়। এরই পরিপেক্ষিতে পোকাটির আক্রমন যেন ভূট্টা ফসলের উৎপাদন ও বৃদ্ধি প্রক্রিয়া ব্যহত না হয় সেজন্য উপজেলার ভূট্টা আবাদকৃত এলাকায় সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের সজাগ দৃষ্টি রাখা এবং পোকার উপস্থিতি দেখা গেলে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন ও অবহিতকরনের জন্য উপজেলা কৃষি অফিসার সকলকে অনুরোধ করে। তদোপরি, ১৫/০১/২০১৯ ইং তারিখে গোগনগর ইউনিয়নের বাড়িরটেক ব্লকের এসএএও মোসাঃ আফরোজা খাতুন তার ব্লকের প্রনোদনায় ভূট্টার ফল আর্মি ওয়ার্ম এর পূর্নাঙ্গ পোকা পাওয়ার সাথে সাথে প্লট পরিদর্শন করে আক্রান্ত গাছ হতে কীড়া চিহ্নিত করে উপজেলা কৃষি অফিসকে অবগত করেন।

 

উপজেলা কৃষি অফিসার তার অফিসের সংশ্লিষ্টদের নিয়ে গোগনগর ইউনিয়নের ৩ টি ব্লক সরোজমিনে পরিদর্শন করে। পরিদর্শনকালে গোগনগর ইউনিয়নের সম্মানিত চেয়ারম্যান, মেম্বার, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের এসএএও, বালাইনাশক কোম্পানির প্রতিনিধি, স্থানিয় কীটনাশক ডিলার ও ভূট্টা চাষীরা উপস্থিত ছিলেন। পরিদর্শন টিম সরেজমিনে ভূট্টার প্লট পরিদর্শন করে ফল আর্মিওয়ার্ম পোকার আক্রমন বিষয়ে নিশ্চিত হয় এবং ফল আর্মিওয়ার্ম পোকার আক্রমনের তীব্রতা ১০% পাওয়া যায়। তাৎক্ষনিকভাবে জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় কীটনাশক ডিলার, এসএএও ও সংশ্লিষ্টদের সমন্বয়ে স্কোয়াড গঠনের মাধ্যমে ফল আর্মিওয়ার্ম দমনের কার্যক্রম গ্রহন করা হয়।

 

আক্রান্ত গাছ হতে ডিম বা দলাবদ্ধ কীড়া চিহ্নিত করে পিষে মেরে ফেলতে হবে বা মাটির নিচে কমপক্ষে এক ফুট পরিমান গর্ত করে পুতেঁ ফেলতে হবে।প্রাথমিক আক্রমণ দেখা দেয়ার সাথে সাথে ফল আর্মিওয়ার্মের ফেরোমন ফাঁদ (বিগাপ্রতি ৫টি হারে) জমিতে স্থাপন করতে হবে।এছাড়া প্রাথমিক আক্রমণের সাথে সাথে জৈব বালাইনাশক এসএপিভি (প্রতি লিটার পানিতে ০.২ গ্রাম হিসেবে মিশিয়ে) ১০ দিন পরপর ২-৩ বার জমিতে প্রয়োগ করতে হবে।

 

এরই প্রেক্ষিতে অদ্য ২৩/১/১৯ ইং তারিখ উপ-পরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, নারায়ণগঞ্জ, জনাব কাজী হাবীবুর রহমান, অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (উদ্ভিদ সংরক্ষণ), জনাব মোঃ মুরাদুল হাসান এবং উপজেলা কৃষি অফিসার, জনাব মোঃ আাব্দুুল গফ্ফার উক্ত মাঠ পরিদর্শন করেন এবং আক্রান্ত প্লটে পোকা দমন প্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি অফিসার জনাব মোঃ আাব্দুুল গফফার বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, কীটনাশক ডিলার ও কৃষকদের সমন্বয়ে গ্রুপ মিটিং করে সচেতনতা বৃদ্ধি করা হয় এবং ফল আর্মিওর্য়াম বিষয়ক লিফলেট বিতরন করার পাশাপাশি, স্থানীয় কীটনাশক ডিলারের দোকান পরিদর্শন করে এসএমপিভি, ট্রেসার, নাইট্রো, ভিরতাকো, কারজেন ইত্যাদি জৈব ও রাসায়নিক বালাইনাশকের সরবরাহ নিশ্চিত করা হয়।এছাড়া, উপজেলা পরিষদের সদস্যদের সাথে ভূট্টা ফসলের ফল আর্মিওয়ার্ম পোকার আক্রমন সমন্ধে অবহিত করা হয় এবং প্রয়োজনে এ বিষয়ে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ করা হয়।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪৬৩২৫০৯, ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ।

News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD