স্ত্রী ও শিশু সন্তানকে ফিরে পেতে স্বামীর আকুতি!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

মাইনুল ইসলাম রাজু আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি।
দীর্ঘ ৮ বছরের সংসার। হঠাৎ একদিন কাজ শেষে ঘরে ফিরে দেখেন স্ত্রী ও শিশু সন্তান নেই, নেই স্ত্রী ও শিশু সন্তানের ব্যবহৃত জামা কাপড় ও গহনা, এমনকি ঘরে নেই স্বামীর কষ্টে অর্জিত জমানো নগদ টাকাও। অনেক খোঁজাখুঁজি করে তাদের কোন সন্ধান না পেয়ে বেচারা স্বামী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

সাধারণ ডায়েরী সূত্রে জানা যায়, গত ৮ বছর পূর্বে (২০১৪ সালে) বরগুনার আমতলী উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের চন্দ্রা গ্রামের আব্দুল কাদের হাওলাদারের পুত্র মোঃ দুলাল মিয়ার সাথে পারিবারিকভাবে পার্শ্ববর্তী গলাচিপা উপজেলার গোলখালী ইউনিয়নের শুহুরী ব্রীজ এলাকার শানু গাজীর কণ্যা শারমিন আক্তারের বিয়ে হয়।
বিয়ে করেই স্বামী দুলাল তার স্ত্রী শারমিন আক্তারকে নিয়ে নারায়নগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানার আলীগঞ্জে জনৈক সেলিম মাস্টারের ভাড়াটিয়া বাসায় নিয়ে বসবাস করতে থাকেন। দুলাল ওখানে রাজমিস্ত্রীর কাজ করেন। ভালোই চলছিল দুলালের সংসার। বিয়ের সাড়ে ৪ বছর পরে দুলালের স্ত্রী শারমিনের কোল ঝুড়ে আসে তাদের একমাত্র পুত্র সন্তান মোঃ ঈসা (৩ বছর ৬ মাস)।
কিন্তু হঠাৎ করে তাদের সংসারে নেমে আসে ঝড়। গত ২৩ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৮টার দিকে দুলালের স্ত্রী শারমিন আক্তার তার শিশু পুত্রকে সাথে নিয়ে বাপের বাড়ী গলাচিপা যাওয়ার কথা বলে নিরুদ্দেশ হয়ে যান। ওই দিন স্বামী দুলাল কাজ থেকে বাড়ী ফিরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার স্ত্রীর ব্যবহৃত মুঠোফোনে কল দিয়ে জানার চেষ্টা করেন সে তার বাপের বাড়ীতে ঠিকঠাকভাবে পৌছাইছে কিনা? স্ত্রীর ব্যবহৃত মুঠোফোন বন্ধ পেয়ে দুলাল তার শ্বশুর শানু গাজীর মুঠোফোনে কল দিয়ে জানতে পারে তার স্ত্রী শারমিন আক্তার সেখানে যায়নি। এরপর বাসার আলমিরা খুলে দেখেন তার স্ত্রী শারমিন আক্তার দুলালের জমানো নগদ ১০ হাজার টাকা, ১ ভড়ি স্বর্ণের জিনিষ ও স্ত্রী এবং শিশু পুত্রের ব্যবহৃত সকল কাপড় চোপড় সাথে নিয়ে গেছে। ওই দিন থেকে স্বামী দুলাল সকল আত্মীয়-স্বজনসহ সম্ভাব্য সকল স্থানে স্ত্রী ও শিশু পুত্রকে খুঁজতে থাকেন। না পেয়ে ২৫ নভেম্বর ফতুল্লা থানায় স্ত্রী ও শিশু পুত্রকে ফিরে পেতে একটি সাধারণ ডায়েরী করেন।

ওই বিষয়ে স্বামী দুলাল মিয়া বলেন, আমার স্ত্রী (শারমিন আক্তার) বাপের বাড়ীতে যাওয়ার কথা বলে আমার একমাত্র শিশু পুত্রকে সাথে নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে অদ্যবদি আর ফিরে আসেনি। যাওয়ার সময় আমার ঘরের আলমিরার মধ্যে থাকা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও কাপড় চোপড় নিয়ে গেছে। তিনি আরো বলেন, আমার স্ত্রী একমাত্র সন্তানকে নিয়ে কোথায় আছে, না কেহ তাকে ফুঁসলিয়ে বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে গেছে, না কারো সাথে গোপনে সম্পর্ক করে তার হাত ধরে চলে গিয়েছে, তা আমি জানিনা। আমি আমার স্ত্রী ও সন্তানকে অনেক ভালোবাসি। আমার স্ত্রী ও শিশু পুত্রের সন্ধান জানতে এবং তাদের ফিরে পেতে আইনশৃংঙ্খলা বাহিনীর সাহায্য কামনা করছি।

দুলালের শ্বাশুরী খাদিজা বেগম বলেন, মোর মাইয়া স্বামীর বাসায়গোনে মোগো বাড়তে বেড়াইতে আওয়ার কতা কইয়্যা আর আয় নাই। না কইয়া কুইম্মে বোলে গেছে। এ্যাহোনো পাই নাই। এ্যাহন মোরা হগুলডি মিল্যা বিচ্ছাইতেছি।

ফতুল্লা থানার সাব ইন্সেপেক্টর মোঃ কামাল হোসেন মুঠোফোনে বলেন, ওই ঘটনায় স্বামী দুলাল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। তদন্ত চলমান আছে। নিখোঁজ স্ত্রী ও শিশু পুত্রকে খুঁজে বের করার চেষ্টা অব্যাহত আছে।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

সর্বশেষ সংবাদ



» যৌতুক মামলায় আর্থিক দন্ডপ্রাপ্ত হয়েও সরকারী চাকুরীতে বহাল তবিয়তে প্রধান শিক্ষিকা

» গাজীপুর আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন এডভোকেট শামসুল হক

» ৬ষ্ঠ বছরে পদার্পণ উপলক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের অভিষেক অনুষ্ঠিত

» মৌলভীবাজারে দৈনিক গণমুক্তি‘র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

» বুড়িগঙ্গা নদী থেকে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার

» ফতুল্লায় ইয়াবা ট্যাবলেটসহ শান্ত ও বাবু গ্রেফতার

» আমতলীতে ৪০০ গ্রাম গাঁজা এবং ১০ পিস ইয়াবাসহ আটক ৩ কারবারী

» ফতুল্লায় যমুনা ডিপো গেইট থেকে তেলসহ চুরি হওয়া ট্যাকলড়ী কাচপুরে উদ্ধার

» ফতুল্লায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার চালক নিহত

» সাংবাদিকের বাবা-মায়ের উপর হামলা, রক্তাক্ত জখম

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : ফয়সাল আহম্মেদ
সহ-বার্তা সম্পাদক : সেলিম হাওলাদার
editor.kuakatanews@gmail.com

প্রধান কার্যালয় : সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : সেহাচর, তক্কারমাঠ রোড, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ।
ফোন : +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ০১৬৭৪৬৩২৫০৯
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯।

Email : ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, খ্রিষ্টাব্দ, ১৮ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

স্ত্রী ও শিশু সন্তানকে ফিরে পেতে স্বামীর আকুতি!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

মাইনুল ইসলাম রাজু আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি।
দীর্ঘ ৮ বছরের সংসার। হঠাৎ একদিন কাজ শেষে ঘরে ফিরে দেখেন স্ত্রী ও শিশু সন্তান নেই, নেই স্ত্রী ও শিশু সন্তানের ব্যবহৃত জামা কাপড় ও গহনা, এমনকি ঘরে নেই স্বামীর কষ্টে অর্জিত জমানো নগদ টাকাও। অনেক খোঁজাখুঁজি করে তাদের কোন সন্ধান না পেয়ে বেচারা স্বামী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

সাধারণ ডায়েরী সূত্রে জানা যায়, গত ৮ বছর পূর্বে (২০১৪ সালে) বরগুনার আমতলী উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের চন্দ্রা গ্রামের আব্দুল কাদের হাওলাদারের পুত্র মোঃ দুলাল মিয়ার সাথে পারিবারিকভাবে পার্শ্ববর্তী গলাচিপা উপজেলার গোলখালী ইউনিয়নের শুহুরী ব্রীজ এলাকার শানু গাজীর কণ্যা শারমিন আক্তারের বিয়ে হয়।
বিয়ে করেই স্বামী দুলাল তার স্ত্রী শারমিন আক্তারকে নিয়ে নারায়নগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানার আলীগঞ্জে জনৈক সেলিম মাস্টারের ভাড়াটিয়া বাসায় নিয়ে বসবাস করতে থাকেন। দুলাল ওখানে রাজমিস্ত্রীর কাজ করেন। ভালোই চলছিল দুলালের সংসার। বিয়ের সাড়ে ৪ বছর পরে দুলালের স্ত্রী শারমিনের কোল ঝুড়ে আসে তাদের একমাত্র পুত্র সন্তান মোঃ ঈসা (৩ বছর ৬ মাস)।
কিন্তু হঠাৎ করে তাদের সংসারে নেমে আসে ঝড়। গত ২৩ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৮টার দিকে দুলালের স্ত্রী শারমিন আক্তার তার শিশু পুত্রকে সাথে নিয়ে বাপের বাড়ী গলাচিপা যাওয়ার কথা বলে নিরুদ্দেশ হয়ে যান। ওই দিন স্বামী দুলাল কাজ থেকে বাড়ী ফিরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার স্ত্রীর ব্যবহৃত মুঠোফোনে কল দিয়ে জানার চেষ্টা করেন সে তার বাপের বাড়ীতে ঠিকঠাকভাবে পৌছাইছে কিনা? স্ত্রীর ব্যবহৃত মুঠোফোন বন্ধ পেয়ে দুলাল তার শ্বশুর শানু গাজীর মুঠোফোনে কল দিয়ে জানতে পারে তার স্ত্রী শারমিন আক্তার সেখানে যায়নি। এরপর বাসার আলমিরা খুলে দেখেন তার স্ত্রী শারমিন আক্তার দুলালের জমানো নগদ ১০ হাজার টাকা, ১ ভড়ি স্বর্ণের জিনিষ ও স্ত্রী এবং শিশু পুত্রের ব্যবহৃত সকল কাপড় চোপড় সাথে নিয়ে গেছে। ওই দিন থেকে স্বামী দুলাল সকল আত্মীয়-স্বজনসহ সম্ভাব্য সকল স্থানে স্ত্রী ও শিশু পুত্রকে খুঁজতে থাকেন। না পেয়ে ২৫ নভেম্বর ফতুল্লা থানায় স্ত্রী ও শিশু পুত্রকে ফিরে পেতে একটি সাধারণ ডায়েরী করেন।

ওই বিষয়ে স্বামী দুলাল মিয়া বলেন, আমার স্ত্রী (শারমিন আক্তার) বাপের বাড়ীতে যাওয়ার কথা বলে আমার একমাত্র শিশু পুত্রকে সাথে নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে অদ্যবদি আর ফিরে আসেনি। যাওয়ার সময় আমার ঘরের আলমিরার মধ্যে থাকা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও কাপড় চোপড় নিয়ে গেছে। তিনি আরো বলেন, আমার স্ত্রী একমাত্র সন্তানকে নিয়ে কোথায় আছে, না কেহ তাকে ফুঁসলিয়ে বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে গেছে, না কারো সাথে গোপনে সম্পর্ক করে তার হাত ধরে চলে গিয়েছে, তা আমি জানিনা। আমি আমার স্ত্রী ও সন্তানকে অনেক ভালোবাসি। আমার স্ত্রী ও শিশু পুত্রের সন্ধান জানতে এবং তাদের ফিরে পেতে আইনশৃংঙ্খলা বাহিনীর সাহায্য কামনা করছি।

দুলালের শ্বাশুরী খাদিজা বেগম বলেন, মোর মাইয়া স্বামীর বাসায়গোনে মোগো বাড়তে বেড়াইতে আওয়ার কতা কইয়্যা আর আয় নাই। না কইয়া কুইম্মে বোলে গেছে। এ্যাহোনো পাই নাই। এ্যাহন মোরা হগুলডি মিল্যা বিচ্ছাইতেছি।

ফতুল্লা থানার সাব ইন্সেপেক্টর মোঃ কামাল হোসেন মুঠোফোনে বলেন, ওই ঘটনায় স্বামী দুলাল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। তদন্ত চলমান আছে। নিখোঁজ স্ত্রী ও শিশু পুত্রকে খুঁজে বের করার চেষ্টা অব্যাহত আছে।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : ফয়সাল আহম্মেদ
সহ-বার্তা সম্পাদক : সেলিম হাওলাদার
editor.kuakatanews@gmail.com

প্রধান কার্যালয় : সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : সেহাচর, তক্কারমাঠ রোড, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ।
ফোন : +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ০১৬৭৪৬৩২৫০৯
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯।

Email : ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD