ডিশ বাবুর যত অপর্কম ও তার বাহিনীর সদস্য যারা!

আলোচিত স্যাটেলাইট ক্যাবল অপারেটর ব্যবসায়ি আব্দুল করিম বাবু ওরফে ডিশ বাবু এখন কারাবন্দি। ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বৃহস্পতিবার বিকালে শহরের পাইকপাড়া এলাকা থেকে ডিবির একটি টিম তাকে গ্রেপ্তার করে।

পরে তাকে বন্দর থানা পুলিশের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়। পরে বন্দর থানা পুলিশ সন্ধ্যায় তাকে আদালতে হাজির করে। আদালত ডিশ বাবুকে কারাগারের পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

গ্রেপ্তারকৃত বাবু নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যকরি কমিটির সদস্য। তার বিরুদ্ধে প্রভাব বিস্তার করে শহর ও শহরতলীর ডিস ব্যবসার একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রনের অভিযোগ রয়েছে। তাকে চাঁদা না দিয়ে কেউ কোথাও ডিস ব্যবসা করতে পারে না। কাউন্সিলর বাবু নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত।

বন্দর থানায় কাউছার নামের একজন ডিস ব্যবসায়ী ১০ লাখ টাকা চাঁদাবাজির মামলা করে কাউন্সিলর বাবুর বিরুদ্ধে। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, কাউন্সিলর বাবু নদীর পূর্বপাড়ের ডিস ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ নেয়ার জন্য স্থানীয় ব্যবসায়ি কাউসার গংদের ডিসের ক্যাবল কেটে নিয়ে যায় এবং প্রতিবাদ করায় কাউন্সিলর বাবুর লোকজন দুই যুবককে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করে। এ ঘটনায় কাউসার বৃহস্পতিবার সকালে কাউন্সিলর বাবুকে প্রধান আসামী করে একটি চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করে।

কাউন্সিলর বাবুর বিরুদ্ধে যত অভিযোগ : 

ব্যবসায়ি কাউসার মামলায় উল্লেখ করেন, আব্দুল করিম বাবু (ডিস বাবু) জোরপূর্বক বন্দরে তার লোকজন দিয়ে কেবল নেটওয়ার্কে ব্যবসার নিয়ন্ত্রন নিতে বিভিন্ন জায়গায় কেবল নেটওয়ার্কের তার কেটে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়ার চেষ্টা করে। 

এ ঘটনায় বন্দর কেবল নেটওয়ার্কের সত্ত্বাধিকারী পারভেজ আলম, মোঃ সাইফুল ইসলাম (শ্যামল) এর সঙ্গে বাবুর দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলছে। এক পর্যায়ে নেটওয়ার্কের ব্যবসার জন্য বন্দর কেবল নেটওয়ার্কের মালিকের নিকট ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। 

এরই জের ধরে ১৭ এপ্রিল বিকালে বন্দরের ফরাজিকান্দা বাজারের রিতুর বাড়ির সামনের নেটওয়ার্কের মেরামত কাজ করার সময় বাবুর নির্দেশে আসামী মোঃ সজিব (৩৫), মোঃ রিতু (৩২), মোঃ রনি (৩৪), মোঃ জুম্মাল (৩৪), মোঃ নিজুম, মোঃ রানা (৩৫) সহ আরো অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জন লাঠি-সোঠা ও দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে এলোপাথারী মারধর করে নগদ সাড়ে ১০ হাজার টাকা, একটি ফাইভার মেশিনসহ বিভিন্ন সরঞ্জমাদী নিয়ে যায়।

এছাড়া বন্দর সোনাকান্দা হতে আলীনগর হয়ে প্রায় কয়েক লাখ টাকার ডিশ লাইনের ক্যাবলসহ সরঞ্জামাদি কেটে নিয়ে যায় ফরাজীকান্দা এলাকার সন্ত্রাসী সজিব গং। ডিশের ক্যাবল কাটার কারণে প্রায় ২ হাজার গ্রাহক স্যাটেলাইট ক্যাবল টিভির (ডিশ লাইন) সেবা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। 

এ ঘটনায় কাউন্সিরর বাবু ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। এক পর্যায়ে কাউন্সিলর বাবুর লোকজন সোনাকান্দা, আলীনগর এলাকায় বাবু তার বাহিনীর মাধ্যমে নদীর তলদেশ দিয়ে ডিশ লাইন সংযোগ স্থাপনের কাজ শুরু করে। 

এ ঘটনায় ২৩ মার্চ কাউন্সিলর ডিস বাবুর বিরুদ্ধে বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ ডিস ব্যবসায়ি মো: হাসান। এরপর তিনি ১২ এপ্রিল কাউন্সিলর বাবুর সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে বন্দরে সংবাদ সম্মেলন করেন ক্ষতিগ্রস্থ ডিস ব্যবসায়ি মো: হাসান।

এছাড়া ফতুল্লার পশ্চিম দেওভোগ বাংলাবাজার এলাকার মোঃ মোক্তার হোসেন (৫২) ও শুভ রায় (৩০) নামে দুই স্যাটেলাইট ক্যাবল (ডিস) ব্যবসায়ীর দীর্ঘ প্রায় ২৫ বছরের অধিক সময়ের ব্যবসা জবর দখল করে কাউন্সিলর বাবু। এ ঘটনায় ১৫ মার্চ মোক্তার হোসেন জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও ফতুল্লা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।

ওদিকে ২০১৭ সালের ১৭ মে দৌলত খান নামে এক ব্যক্তি কাউন্সিলর বাবুকে প্রধান আসামী করে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করে। দৌলত খানের অভিযোগ বাবুর নির্দেশ তার সন্ত্রাসী বাহিসীর বাড়িতে ঢুকে গুলি করে তাকে হত্যার হুমকি দিয়েছে। মামলার আসামীদের গ্রেপ্তার না করায় দৌলত খান ২৭ মে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনও করেছিলেন।

গত বছরের ১৩ আগস্ট কাউন্সিলর বাবু দলবল নিয়ে নাসিকের ১৮নং ওয়ার্ডের নলুয়া রোড এলাকায় গিয়ে প্রকাশ্যে গুলি বর্ষণ করে আতঙ্কের সৃষ্টি করে।

বাবুর সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্য যারা :

 

পুলিশ ও স্থানীয়দের সূত্রমতে, কাউন্সিলর বাবু তার একটি সন্ত্রাসী বাহিনীর মাধ্যমে নারায়ণগহ্জ শহর, শহরতলী ও বন্দরে ডিস ব্যবসার নিয়ন্ত্রনে আধিপত্য বিস্তার করে আছে। এরমধ্যে শহরের পাইকপাড়ায় রয়েছে, আরশাদ, রিয়াজ, আরমান, লিটন, সুমন, বদু। 

বন্দরের ফরাজীকান্দা এলাকায় মোঃ সজিব, মোঃ রিতু, মোঃ রনি, মোঃ জুম্মাল, মোঃ নিজুম, মোঃ রানাসহ বিভিন্ন এলাকায় তার অর্ধ শতাধিক সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্য রয়েছে। এই বাহিনীর মাধ্যমে সে ডিস ব্যবসার নিয়ন্ত্রন, মাদক ব্যবসা ও ভুমিদূস্যতা করে আসছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

বাবুর বিরুদ্ধে যত মামলা : 

 

পুলিশের তথ্যমতে, কাউন্সিলর বাবু ও তার বাহিনীর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ সদর, ফতুল্লা ও বন্দর থানায় বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে। তার মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার মামলা নং-২৯, তারিখ-১৭ মে ২০১৭, নারায়নগঞ্জ সদর থানার মামলা নং-২২, তারিখ-১৩ জুন ২০১০, নারায়ণগঞ্জ থানার মামলা নং-১০, তারিখ-১২ জুলাই ২০১৩, উক্ত মামলায় গ্রেপ্তারকৃত আসামী দেলোয়ার হোসেন ওরফে ছোট দেলু ও আসামী মোঃ ঝন্টু ১৬৪ ধারায় বিজ্ঞ আদালতে আব্দুল করিম বাবু (ডিস বাবু) উক্ত ডাকাতি মামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত আছে মর্মে জবানবন্দি প্রদান করে।

পুলিশের বক্তব্য :

জেলা পুলিশ মো: হারুন অর রশিদ বিপিএম, পিপিএম (বার) বলেন, কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু রওফে ডিশ বাবুর বিরুদ্ধে বন্দরের এক ব্যবসায়ি চাঁদবাজির মামলা করে। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি আরো বলেন, ডিশ বাবু শহরের ডিসের ব্যবসা করলেও সে বন্দরের ব্যবসা দখল করার চেষ্টা চালায়। 

তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া এক আসামী আদালতে ১৬৪ ধারার জবানবন্দিতে একটি দস্যুতার ঘটনার সাথে বাবুর জড়িত থাকার বিষয়টি আদালতে বলেছে। নারায়ণগঞ্জ থানায় বাবুর বিরুদ্ধে একাধিক মামলাও রয়েছে।

(সূত্র : বাংলা ২৪ বিডি নিউজ)
 

Facebook Comments

সর্বশেষ সংবাদ



» রিফাত হত্যায় অবশেষে মিন্নি গ্রেফতার

» অনলাইন নিউজ পোর্টাল মালিকদের ৭দফা দাবি দিয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি

» খাদ্যে ভেজাল রোধে মৃত্যুদন্ডের আইন বাস্তবায়ন চেয়ে এনসিবি’র স্মারকলিপি

» কুয়াকাটায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

» পায়রা বন্দরে আশ্রয়ে থাকা ভারতীয় জেলেরা পারি জমালেন নিজ দেশে উদ্দেশ্যে

» তরুণ প্রজন্ম ক্ষতিগ্রস্ত হয় ফেসবুক, ইউটিউব এবং গুগল ব্যবহার করে

» কলাপাড়ায় ইউপি সদস্য ও যুবলীগ নেতা জখম

» বেনাপোল থেকে ঢাকা সরাসরি ট্রেন “বেনাপোল এক্সপ্রেস” চালুর অবকাঠামোর প্রস্তুতি প্রায় শেষ

» কালীগঞ্জে ভ্রাম্যমান আদালত কর্তৃক দুটি পেট্রোল পাম্পের মালিককে জরিমানা

» শৈলকুপায় বজ্রপাতে পিতা-পুত্রের মৃত্যু




প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন

Info@ujjibitobd.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD




আজ : বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, খ্রিষ্টাব্দ, ২রা শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ডিশ বাবুর যত অপর্কম ও তার বাহিনীর সদস্য যারা!

আলোচিত স্যাটেলাইট ক্যাবল অপারেটর ব্যবসায়ি আব্দুল করিম বাবু ওরফে ডিশ বাবু এখন কারাবন্দি। ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বৃহস্পতিবার বিকালে শহরের পাইকপাড়া এলাকা থেকে ডিবির একটি টিম তাকে গ্রেপ্তার করে।

পরে তাকে বন্দর থানা পুলিশের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়। পরে বন্দর থানা পুলিশ সন্ধ্যায় তাকে আদালতে হাজির করে। আদালত ডিশ বাবুকে কারাগারের পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

গ্রেপ্তারকৃত বাবু নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যকরি কমিটির সদস্য। তার বিরুদ্ধে প্রভাব বিস্তার করে শহর ও শহরতলীর ডিস ব্যবসার একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রনের অভিযোগ রয়েছে। তাকে চাঁদা না দিয়ে কেউ কোথাও ডিস ব্যবসা করতে পারে না। কাউন্সিলর বাবু নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত।

বন্দর থানায় কাউছার নামের একজন ডিস ব্যবসায়ী ১০ লাখ টাকা চাঁদাবাজির মামলা করে কাউন্সিলর বাবুর বিরুদ্ধে। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, কাউন্সিলর বাবু নদীর পূর্বপাড়ের ডিস ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ নেয়ার জন্য স্থানীয় ব্যবসায়ি কাউসার গংদের ডিসের ক্যাবল কেটে নিয়ে যায় এবং প্রতিবাদ করায় কাউন্সিলর বাবুর লোকজন দুই যুবককে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করে। এ ঘটনায় কাউসার বৃহস্পতিবার সকালে কাউন্সিলর বাবুকে প্রধান আসামী করে একটি চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করে।

কাউন্সিলর বাবুর বিরুদ্ধে যত অভিযোগ : 

ব্যবসায়ি কাউসার মামলায় উল্লেখ করেন, আব্দুল করিম বাবু (ডিস বাবু) জোরপূর্বক বন্দরে তার লোকজন দিয়ে কেবল নেটওয়ার্কে ব্যবসার নিয়ন্ত্রন নিতে বিভিন্ন জায়গায় কেবল নেটওয়ার্কের তার কেটে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়ার চেষ্টা করে। 

এ ঘটনায় বন্দর কেবল নেটওয়ার্কের সত্ত্বাধিকারী পারভেজ আলম, মোঃ সাইফুল ইসলাম (শ্যামল) এর সঙ্গে বাবুর দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলছে। এক পর্যায়ে নেটওয়ার্কের ব্যবসার জন্য বন্দর কেবল নেটওয়ার্কের মালিকের নিকট ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। 

এরই জের ধরে ১৭ এপ্রিল বিকালে বন্দরের ফরাজিকান্দা বাজারের রিতুর বাড়ির সামনের নেটওয়ার্কের মেরামত কাজ করার সময় বাবুর নির্দেশে আসামী মোঃ সজিব (৩৫), মোঃ রিতু (৩২), মোঃ রনি (৩৪), মোঃ জুম্মাল (৩৪), মোঃ নিজুম, মোঃ রানা (৩৫) সহ আরো অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জন লাঠি-সোঠা ও দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে এলোপাথারী মারধর করে নগদ সাড়ে ১০ হাজার টাকা, একটি ফাইভার মেশিনসহ বিভিন্ন সরঞ্জমাদী নিয়ে যায়।

এছাড়া বন্দর সোনাকান্দা হতে আলীনগর হয়ে প্রায় কয়েক লাখ টাকার ডিশ লাইনের ক্যাবলসহ সরঞ্জামাদি কেটে নিয়ে যায় ফরাজীকান্দা এলাকার সন্ত্রাসী সজিব গং। ডিশের ক্যাবল কাটার কারণে প্রায় ২ হাজার গ্রাহক স্যাটেলাইট ক্যাবল টিভির (ডিশ লাইন) সেবা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। 

এ ঘটনায় কাউন্সিরর বাবু ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। এক পর্যায়ে কাউন্সিলর বাবুর লোকজন সোনাকান্দা, আলীনগর এলাকায় বাবু তার বাহিনীর মাধ্যমে নদীর তলদেশ দিয়ে ডিশ লাইন সংযোগ স্থাপনের কাজ শুরু করে। 

এ ঘটনায় ২৩ মার্চ কাউন্সিলর ডিস বাবুর বিরুদ্ধে বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ ডিস ব্যবসায়ি মো: হাসান। এরপর তিনি ১২ এপ্রিল কাউন্সিলর বাবুর সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে বন্দরে সংবাদ সম্মেলন করেন ক্ষতিগ্রস্থ ডিস ব্যবসায়ি মো: হাসান।

এছাড়া ফতুল্লার পশ্চিম দেওভোগ বাংলাবাজার এলাকার মোঃ মোক্তার হোসেন (৫২) ও শুভ রায় (৩০) নামে দুই স্যাটেলাইট ক্যাবল (ডিস) ব্যবসায়ীর দীর্ঘ প্রায় ২৫ বছরের অধিক সময়ের ব্যবসা জবর দখল করে কাউন্সিলর বাবু। এ ঘটনায় ১৫ মার্চ মোক্তার হোসেন জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও ফতুল্লা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।

ওদিকে ২০১৭ সালের ১৭ মে দৌলত খান নামে এক ব্যক্তি কাউন্সিলর বাবুকে প্রধান আসামী করে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করে। দৌলত খানের অভিযোগ বাবুর নির্দেশ তার সন্ত্রাসী বাহিসীর বাড়িতে ঢুকে গুলি করে তাকে হত্যার হুমকি দিয়েছে। মামলার আসামীদের গ্রেপ্তার না করায় দৌলত খান ২৭ মে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনও করেছিলেন।

গত বছরের ১৩ আগস্ট কাউন্সিলর বাবু দলবল নিয়ে নাসিকের ১৮নং ওয়ার্ডের নলুয়া রোড এলাকায় গিয়ে প্রকাশ্যে গুলি বর্ষণ করে আতঙ্কের সৃষ্টি করে।

বাবুর সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্য যারা :

 

পুলিশ ও স্থানীয়দের সূত্রমতে, কাউন্সিলর বাবু তার একটি সন্ত্রাসী বাহিনীর মাধ্যমে নারায়ণগহ্জ শহর, শহরতলী ও বন্দরে ডিস ব্যবসার নিয়ন্ত্রনে আধিপত্য বিস্তার করে আছে। এরমধ্যে শহরের পাইকপাড়ায় রয়েছে, আরশাদ, রিয়াজ, আরমান, লিটন, সুমন, বদু। 

বন্দরের ফরাজীকান্দা এলাকায় মোঃ সজিব, মোঃ রিতু, মোঃ রনি, মোঃ জুম্মাল, মোঃ নিজুম, মোঃ রানাসহ বিভিন্ন এলাকায় তার অর্ধ শতাধিক সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্য রয়েছে। এই বাহিনীর মাধ্যমে সে ডিস ব্যবসার নিয়ন্ত্রন, মাদক ব্যবসা ও ভুমিদূস্যতা করে আসছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

বাবুর বিরুদ্ধে যত মামলা : 

 

পুলিশের তথ্যমতে, কাউন্সিলর বাবু ও তার বাহিনীর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ সদর, ফতুল্লা ও বন্দর থানায় বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে। তার মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার মামলা নং-২৯, তারিখ-১৭ মে ২০১৭, নারায়নগঞ্জ সদর থানার মামলা নং-২২, তারিখ-১৩ জুন ২০১০, নারায়ণগঞ্জ থানার মামলা নং-১০, তারিখ-১২ জুলাই ২০১৩, উক্ত মামলায় গ্রেপ্তারকৃত আসামী দেলোয়ার হোসেন ওরফে ছোট দেলু ও আসামী মোঃ ঝন্টু ১৬৪ ধারায় বিজ্ঞ আদালতে আব্দুল করিম বাবু (ডিস বাবু) উক্ত ডাকাতি মামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত আছে মর্মে জবানবন্দি প্রদান করে।

পুলিশের বক্তব্য :

জেলা পুলিশ মো: হারুন অর রশিদ বিপিএম, পিপিএম (বার) বলেন, কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু রওফে ডিশ বাবুর বিরুদ্ধে বন্দরের এক ব্যবসায়ি চাঁদবাজির মামলা করে। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি আরো বলেন, ডিশ বাবু শহরের ডিসের ব্যবসা করলেও সে বন্দরের ব্যবসা দখল করার চেষ্টা চালায়। 

তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া এক আসামী আদালতে ১৬৪ ধারার জবানবন্দিতে একটি দস্যুতার ঘটনার সাথে বাবুর জড়িত থাকার বিষয়টি আদালতে বলেছে। নারায়ণগঞ্জ থানায় বাবুর বিরুদ্ধে একাধিক মামলাও রয়েছে।

(সূত্র : বাংলা ২৪ বিডি নিউজ)
 

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন

Info@ujjibitobd.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD