বাংলাবাজারে মসজিদের ইমামের নীতিহীন কর্মকান্ডে ক্ষুদ্ধ মুসুল্লি,বাড়ছে ক্ষোভ

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

মসজিদ আল্লাহ’র ঘর হিসেবেই পরিচিত,সেখানে পরনিন্দা,গীবতসহ কোন মানুষকে নিয়ে সমালোচনা করার নিয়ম না থাকলে দেওভোগ বাংলাবাজার এলাকায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদ ( তালতলা ) মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মুফতি জাকারিয়ার বিরুদ্ধে মসজিদে আগত মুসুল্লিদেরকে নিয়ে গীবত,পরনিন্দা ও সমালোচনা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

মসজিদে আগত মুসুল্লিদের কাছে জানা যায়, প্রায় ৬/৭ বছর যাবত উক্ত মসজিদে ইমামতি করছেন হাফেজ জাকারিয়া। দীর্ঘ এ সময়ে তিনি মসজিদে আগত মুসুল্লিদের নিয়ে শুক্রবারের জুম্মা নামাজে বিভিন্ন আলোচনা সমালোচনা করে যাচ্ছেন। বিভিন্ন সময়ে মুসুল্লিরা প্রতিবাদ করলে তাদেরকে মসজিদে প্রবেশের জন্য আসতে বারন করে থাকেন। মুসুল্লিরা ইমাম সাহেবের অত্যাধিক বাড়াবাড়ির বিষয়ে মসজিদ কমিটির সভাপতি আ.ফ.ম ইসরাইল,সাধারন সম্পাদক আলহাজ গিয়াসউদ্দিন ও সদস্য আবুল কাশেমকে অবহিত করলেও তারা বিষয়টির প্রতিবাদ না করে উল্টো ইমামকে সহযোগিতা করার দরুন দিনের পর দিন মসজিদে মুসুল্লির সংখ্যা কমছে বলে জানান স্থানীয়রা। অপর দিকে মসজিদের মোতয়াল্লী আবুল আজিজের ছেলে মো.মনির হোসেন নিজেদের মসজিদ দাবী করে কমিটির অন্যান্য সদস্যদের সাথে খারাপ আচরন এবং আগত মুসুল্লিদের সাথে একই আচরন করে নিজের মন মত উক্ত ইমামকে দিয়ে নামাজ পড়াচ্ছেন বলে জানান অনেকে। মসজিদের ইমাম জাকারিয়া সাহেব হাজিপাড়া মাদ্রাসার শিক্ষক হওয়ায় তিনি মসজিদের উন্নয়নমুলক কাজে মুসুল্লিদের কাছ থেকে মসজিদের জন্য অনুদান না তুলে মাদ্রাসার নামে বিভিন্ন সময়ে অনুদান তুলছেন বলে দাবী মসজিদে আগত মুসুল্লিদের। এছাড়াও মসজিদের জন্য সরকারী অনুদান হিসেবে সোলার লাইটগুলো ফেরত পাঠিয়ে দেন। এছাড়াও মসজিদের ইমাম হাফেজ জাকারিয়ার বিরুদ্ধে রয়েছে মুসুল্লিদের অগনিত অভিযোগ যেমন, প্রতি শুক্রবার জুম্মা নামাজ ২টা থেকে সোয়া ২টার পর শেষ করেন যা নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন মসজিদে পৌনে ২টা মধ্যে শেষ করে। প্রতি জুম্মা নামাজে সাধারন মানুষকে হেয় করার উদ্দেশ্যে বয়ান করেন,মুসুল্লিদের সাথে আক্রমনাতœক আচরন করেন, আখেরী জুম্মায় মানুষকে হেয় করে বয়ান প্রদান,দুরুদ শরীফ পড়ার সময় ব্যঙ্গ করে পড়া, তার কর্মকান্ডে প্রতিবাদী মুসুল্লিকে মসজিদে প্রবেশে বাধা প্রদান,কমিটির বেশীরভাগ সদস্যকে উপেক্ষা করে আলেম এনে বয়ান করা এবং মুসুল্লিদের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করে সেটা মসজিদে না রেখে মাদ্রাসায় নিয়ে যাওয়াসহ আরো প্রচুর অভিযোগ।

 

নাম প্রকাশে কমিটির অনেক সদস্য ও মুসুল্লিরা জানান, সারা দেশে জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে যখন সরকারসহ দেশের মানুষ সোচ্চার ভুমিকা রাখছে পাশাপাশি বিভিন্ন মসজিদে জঙ্গীবাদেও বিরুদ্ধে ইমাম সাহেবরা বয়ানের মাধ্যমে স্থানীয়দের মাঝে সতর্কমুলক বার্তা প্রদান করছে ঠিক সে সময়ে অত্র মসজিদের ইমামের মুখে কখনও জঙ্গীদের বিরুদ্ধে কোন সতর্কমুলক বানী শুনতে পায়নি মসজিদে আসা মুসুল্লিরা। অনেকেই বলছেন জঙ্গীবাদের নিশ্চুপ থাকা হাফেজ জাকারিয়ার কোন সম্পৃক্ততা রয়েছে কিনা তা তদারকি করতে জেলা পুলিশ ও গোয়েন্দাদের অনুরোধ জানান বাংলাবাজার ও আশপাশের সাধারন মানুষ।

 

এ বিষয়ে মসজিদ কমিটির সভাপতি আ.ফ.ম ইসরাইল এর ব্যবহৃত মুঠোফোনে ( ০১৭৫৫৫৭৮***) একাধিকার ফোন করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেনি।

 

এ বিষয়ে মসজিদ কমিটির সাধারন সম্পাদক আলহাজ গিয়াসউদ্দিনের ব্যবহৃত মুঠোফোনে ( ০১৭১৫১৩৪***) একাধিকবার ফোন করা হলে তিনি রিসিভ করেনি।

Facebook Comments

সর্বশেষ সংবাদ



» ১৫ আগস্ট – জাতীয় শোক দিবস

» ১৫ আগস্ট – জাতীয় শোক দিবস

» নিহত শুভ ছিল রেমিট্যান্স যোদ্ধা – মানববন্ধনে বক্তারা

» ১৫ আগস্ট – জাতীয় শোক দিবস

» ১৫ আগস্ট – জাতীয় শোক দিবস

» ১৫ আগস্ট – জাতীয় শোক দিবস

» ১৫ আগস্ট – জাতীয় শোক দিবস

» ১৫ আগস্ট – জাতীয় শোক দিবস

» আবরার হত্যার অভিযোগ গঠন, ২ সেপ্টেম্বর শুনানি

» হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা এবার যে সিদ্ধান্ত




প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
সহ সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : কাজী আবু তাহের মো. নাছির
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ,

বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৭১৪ ০৪৩ ১৯৮।
News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, খ্রিষ্টাব্দ, ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বাংলাবাজারে মসজিদের ইমামের নীতিহীন কর্মকান্ডে ক্ষুদ্ধ মুসুল্লি,বাড়ছে ক্ষোভ

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

মসজিদ আল্লাহ’র ঘর হিসেবেই পরিচিত,সেখানে পরনিন্দা,গীবতসহ কোন মানুষকে নিয়ে সমালোচনা করার নিয়ম না থাকলে দেওভোগ বাংলাবাজার এলাকায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদ ( তালতলা ) মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মুফতি জাকারিয়ার বিরুদ্ধে মসজিদে আগত মুসুল্লিদেরকে নিয়ে গীবত,পরনিন্দা ও সমালোচনা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

মসজিদে আগত মুসুল্লিদের কাছে জানা যায়, প্রায় ৬/৭ বছর যাবত উক্ত মসজিদে ইমামতি করছেন হাফেজ জাকারিয়া। দীর্ঘ এ সময়ে তিনি মসজিদে আগত মুসুল্লিদের নিয়ে শুক্রবারের জুম্মা নামাজে বিভিন্ন আলোচনা সমালোচনা করে যাচ্ছেন। বিভিন্ন সময়ে মুসুল্লিরা প্রতিবাদ করলে তাদেরকে মসজিদে প্রবেশের জন্য আসতে বারন করে থাকেন। মুসুল্লিরা ইমাম সাহেবের অত্যাধিক বাড়াবাড়ির বিষয়ে মসজিদ কমিটির সভাপতি আ.ফ.ম ইসরাইল,সাধারন সম্পাদক আলহাজ গিয়াসউদ্দিন ও সদস্য আবুল কাশেমকে অবহিত করলেও তারা বিষয়টির প্রতিবাদ না করে উল্টো ইমামকে সহযোগিতা করার দরুন দিনের পর দিন মসজিদে মুসুল্লির সংখ্যা কমছে বলে জানান স্থানীয়রা। অপর দিকে মসজিদের মোতয়াল্লী আবুল আজিজের ছেলে মো.মনির হোসেন নিজেদের মসজিদ দাবী করে কমিটির অন্যান্য সদস্যদের সাথে খারাপ আচরন এবং আগত মুসুল্লিদের সাথে একই আচরন করে নিজের মন মত উক্ত ইমামকে দিয়ে নামাজ পড়াচ্ছেন বলে জানান অনেকে। মসজিদের ইমাম জাকারিয়া সাহেব হাজিপাড়া মাদ্রাসার শিক্ষক হওয়ায় তিনি মসজিদের উন্নয়নমুলক কাজে মুসুল্লিদের কাছ থেকে মসজিদের জন্য অনুদান না তুলে মাদ্রাসার নামে বিভিন্ন সময়ে অনুদান তুলছেন বলে দাবী মসজিদে আগত মুসুল্লিদের। এছাড়াও মসজিদের জন্য সরকারী অনুদান হিসেবে সোলার লাইটগুলো ফেরত পাঠিয়ে দেন। এছাড়াও মসজিদের ইমাম হাফেজ জাকারিয়ার বিরুদ্ধে রয়েছে মুসুল্লিদের অগনিত অভিযোগ যেমন, প্রতি শুক্রবার জুম্মা নামাজ ২টা থেকে সোয়া ২টার পর শেষ করেন যা নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন মসজিদে পৌনে ২টা মধ্যে শেষ করে। প্রতি জুম্মা নামাজে সাধারন মানুষকে হেয় করার উদ্দেশ্যে বয়ান করেন,মুসুল্লিদের সাথে আক্রমনাতœক আচরন করেন, আখেরী জুম্মায় মানুষকে হেয় করে বয়ান প্রদান,দুরুদ শরীফ পড়ার সময় ব্যঙ্গ করে পড়া, তার কর্মকান্ডে প্রতিবাদী মুসুল্লিকে মসজিদে প্রবেশে বাধা প্রদান,কমিটির বেশীরভাগ সদস্যকে উপেক্ষা করে আলেম এনে বয়ান করা এবং মুসুল্লিদের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করে সেটা মসজিদে না রেখে মাদ্রাসায় নিয়ে যাওয়াসহ আরো প্রচুর অভিযোগ।

 

নাম প্রকাশে কমিটির অনেক সদস্য ও মুসুল্লিরা জানান, সারা দেশে জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে যখন সরকারসহ দেশের মানুষ সোচ্চার ভুমিকা রাখছে পাশাপাশি বিভিন্ন মসজিদে জঙ্গীবাদেও বিরুদ্ধে ইমাম সাহেবরা বয়ানের মাধ্যমে স্থানীয়দের মাঝে সতর্কমুলক বার্তা প্রদান করছে ঠিক সে সময়ে অত্র মসজিদের ইমামের মুখে কখনও জঙ্গীদের বিরুদ্ধে কোন সতর্কমুলক বানী শুনতে পায়নি মসজিদে আসা মুসুল্লিরা। অনেকেই বলছেন জঙ্গীবাদের নিশ্চুপ থাকা হাফেজ জাকারিয়ার কোন সম্পৃক্ততা রয়েছে কিনা তা তদারকি করতে জেলা পুলিশ ও গোয়েন্দাদের অনুরোধ জানান বাংলাবাজার ও আশপাশের সাধারন মানুষ।

 

এ বিষয়ে মসজিদ কমিটির সভাপতি আ.ফ.ম ইসরাইল এর ব্যবহৃত মুঠোফোনে ( ০১৭৫৫৫৭৮***) একাধিকার ফোন করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেনি।

 

এ বিষয়ে মসজিদ কমিটির সাধারন সম্পাদক আলহাজ গিয়াসউদ্দিনের ব্যবহৃত মুঠোফোনে ( ০১৭১৫১৩৪***) একাধিকবার ফোন করা হলে তিনি রিসিভ করেনি।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
সহ সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : কাজী আবু তাহের মো. নাছির
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ,

বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৭১৪ ০৪৩ ১৯৮।
News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD