সোনারগাঁয়ে মাদক সম্রাট থেকে যুবলীগ নেতা সজীব!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

বাবা ছিলেন পুরি বিক্রেতা। সজীবকে শিশু অবস্থায় রেখে মারা যান। বাবা চান মিয়ার অভাব দুর করেন বড় ভাই জামান। বাস চালিয়ে সংসার চালাতেন তিনি। অভাব অনটনে বড় হয় নাজমুর রহমান সজীব ওরফে এসকে সজীব। সোনারগাঁয়ের শীর্ষ মাদক সম্রাট গিট্রু হৃদয়। পরিচয় হয় হৃদয় গিট্রুর সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তুলে চতুর সজীব। শুরু হয় মাদক বিক্রির হাতে খড়ি।যে পরিবারে নুন আনতে পান্তা ফুরায় অল্প দিনে ধনী হবার নেশায় গিট্রু হৃদয়ের মাদক ব্যবসা দেখে সজীব মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে। প্রথমে ফেন্সিডিল ও পরে ইয়াবা ব্যবসায় লিপ্ত হয়। র‌্যাব ও পুলিশের হাতে একাধিক বার আটক হয় সজীব। নাম উঠে পুলিশের খাতায়। সোনারগাঁ থানা পুলিশের ৭ নং তালিকাভূক্ত মাদক সম্রাট হিসেবে গন্য হয় সজীব। গিট্রু হৃদয় পুলিশের ক্রসফায়ারে নিহত হলে পুরো মাদকের সাম্রাজ্য পেয়ে যায় সজীব। তার প্রতিপক্ষ গিট্রু হৃদয় নিহত হলে আনন্দ প্রকাশ করেছিল। কিছুদিন ঘা ডাকা দিয়েছিল।পরে এলাকায় ফিরে এসে বিশাল সিন্ডিকেটের মাধ্যমে মাদকের বড় বড় চালান দিতে থাকে। এমনকি আওয়ামী ও যুবলীগের নেতারা সহজে মাদক পেয়ে যাওয়ায় সজীব হয়ে উঠে প্রিয়। তাদের শেল্টারে মুলত বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সজীব।

 

মাদক ব্যবসা সহজলভ্য করতে সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নুর পদতলে আশ্রয় নেয়। বাগিয়ে নেন মোগড়াপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ। এই পদ পাওয়ার পর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি মাদক সম্রাট সজীবের। এমনকি সাবেক এমপি কায়ছার হাসনাতের নিকটে যেতে বেগ পেতে হয়নি।

 

সরেজমিন সোনারগাঁও ও মোগড়াপাড়া ইউনিয়ন ঘুরে জানা যায়,মাদক সম্রাট সজীবের নানা অপকর্মের কাহিনী।

 

নাম প্রকাশ না করে বাড়িমজলিশ এলাকাবাসী জানান,কোন কিছু না করেই কয়েক কোটি টাকার মালিক বনে গেছে সজীব। চলেন রাজকীয় বেশে, একটি হায়েস গাড়ি ও একটি প্রাইভেট কারে র মালিক সহ গড়ে তুলেছেন ব্যাংক ব্যালেন্স।চলেন নিজস্ব গাড়িতে। সবাইকে বলে বেড়ান গাড়ি ভাড়া দিয়ে চলেন। এর সত্যতাও পাওয়া যায়নি। র‌্যাব পুলিশের হাতে আটক হবার ভয়ে নিজ বাড়িতে না থেকে বিন্নিপাড়ায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। প্রকাশ্যে বলে বেড়ান আমার বিরুদ্ধে লিখে কিছু করতে পারবেনা। পুলিশ,ডিবি পুলিশ ও র‌্যাব এবং রাজনৈতিক নেতারা আমার পকেটে থাকে। আমার গুরু নান্নু ভাই ও কায়ছার ভাই।

 

মাদক সম্রাট সজীব ২ টি গাড়ি দিয়ে বিভিন্ন এলাকায় মাদক সরবরাহ করে থাকে। পুলিশ গোপনে সোর্স লাগিয়ে এর সত্যতা একশো ভাগ পাবে বলে মনে করেন সচেতন এলাকাবাসী।

 

একটি সুত্র হতে জানা যায়,এসকে সজীব একজন দুর্ধর্ষ খুনীও। আরমানকে গলাকেটে হত্যা করে জেলখেটে জামিনে বের হয়ে আসে। রাজনৈতিক শেল্টার নিয়ে মাদক ব্যবসা সহ নানান অপকর্ম করে বেড়ালেও ক্ষমতাসীন দলের নেতা হওয়ায় আইন শৃংখলা বাহিনী নীরব ভূমিকা পালন করছে।

 

সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু মুঠোফোনে জাগো নারায়ণগঞ্জ কে বলেন,আমার চোখে সজীবের এ রকম কর্মকান্ড দেখিনি।

 

এ ব্যাপারে এসকে সজীব মুঠোফোনে জানান, ভাই আমার বয়স যখন ২/৩ বছর তখন আমার আব্বা মারা গিয়েছে। কে বলেছে আপনাকে এ কথা। তিনি আরও বলেন,আজ থেকে আমি আপনার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জে গেলাম যদি পারেন তাহলে লেইখ্যা বা… ফালাইয়েন।

 

সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হাফিজুর রহমান মুঠোফোনে উজ্জীবিত বিডি ডট কমকে বলেন,ভাই আমাদের পুলিশের পক্ষে সব সময় মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারীকে ধরতে সম্ভব হয়না। যদি পুলিশ এবং সাংবাদিক একে-অপরকে মাদক নির্মুলে সহযোগিতা করেন তাহলে সহজতর হয়। সে কোথায় মাদক বিক্রি করছে আমাদেরকে জানালে আমরা অবশ্যই তাকে গ্রেফতার করবো। যদি এভাবে হয় তাহলে সোনারগাঁয়ের সকল মাদক বিক্রেতাদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

সর্বশেষ সংবাদ



» আমতলীতে বিদ্যালয় মাঠে জলাবদ্ধতা খেলাধুলা থেকে বঞ্চিত শিক্ষার্থীরা

» ভ্যাকসিন না নিলে কেউ গণপরিবহনে চলাচল করতে পারবেন না!

» উত্তরা থেকে পাঁচ হাজার পিস ইয়াবাসহ স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

» করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২৩৫ জনের মৃত্যু’ মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২১ হাজার ৩৯৭ জন

» শার্শায় বিরল রোগে আক্রান্ত সন্তানকে বাঁচাতে অসহায় মায়ের আকুতি

» ফতুল্লায় বিপুল পরিমান মাদকসহ গ্রেফতার ৩

» বঙ্গবন্ধুর বেশ ধারন করা তথাকথিত সেই আরুক মুন্সী এখন কয়েকটি ভূইফোর সংগঠনের নেতা

» দশমিনায় স্বামী নিখোঁজ’ স্ত্রী’র জিডি

» হবিগঞ্জের নবীগঞ্জের মোবাইল চোরের সদস্য ধরাশায়ী’ মুচলেকা দিয়ে মুক্তি

» ঝিনাইদহ ট্রাফিক পুলিশ করোনাকালীন দু, মাসে ২৫ লাখ টাকা জরিমানা আদায়

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪৬৩২৫০৯, ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ।

News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : মঙ্গলবার, ৩ আগস্ট ২০২১, খ্রিষ্টাব্দ, ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সোনারগাঁয়ে মাদক সম্রাট থেকে যুবলীগ নেতা সজীব!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

বাবা ছিলেন পুরি বিক্রেতা। সজীবকে শিশু অবস্থায় রেখে মারা যান। বাবা চান মিয়ার অভাব দুর করেন বড় ভাই জামান। বাস চালিয়ে সংসার চালাতেন তিনি। অভাব অনটনে বড় হয় নাজমুর রহমান সজীব ওরফে এসকে সজীব। সোনারগাঁয়ের শীর্ষ মাদক সম্রাট গিট্রু হৃদয়। পরিচয় হয় হৃদয় গিট্রুর সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তুলে চতুর সজীব। শুরু হয় মাদক বিক্রির হাতে খড়ি।যে পরিবারে নুন আনতে পান্তা ফুরায় অল্প দিনে ধনী হবার নেশায় গিট্রু হৃদয়ের মাদক ব্যবসা দেখে সজীব মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে। প্রথমে ফেন্সিডিল ও পরে ইয়াবা ব্যবসায় লিপ্ত হয়। র‌্যাব ও পুলিশের হাতে একাধিক বার আটক হয় সজীব। নাম উঠে পুলিশের খাতায়। সোনারগাঁ থানা পুলিশের ৭ নং তালিকাভূক্ত মাদক সম্রাট হিসেবে গন্য হয় সজীব। গিট্রু হৃদয় পুলিশের ক্রসফায়ারে নিহত হলে পুরো মাদকের সাম্রাজ্য পেয়ে যায় সজীব। তার প্রতিপক্ষ গিট্রু হৃদয় নিহত হলে আনন্দ প্রকাশ করেছিল। কিছুদিন ঘা ডাকা দিয়েছিল।পরে এলাকায় ফিরে এসে বিশাল সিন্ডিকেটের মাধ্যমে মাদকের বড় বড় চালান দিতে থাকে। এমনকি আওয়ামী ও যুবলীগের নেতারা সহজে মাদক পেয়ে যাওয়ায় সজীব হয়ে উঠে প্রিয়। তাদের শেল্টারে মুলত বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সজীব।

 

মাদক ব্যবসা সহজলভ্য করতে সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নুর পদতলে আশ্রয় নেয়। বাগিয়ে নেন মোগড়াপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ। এই পদ পাওয়ার পর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি মাদক সম্রাট সজীবের। এমনকি সাবেক এমপি কায়ছার হাসনাতের নিকটে যেতে বেগ পেতে হয়নি।

 

সরেজমিন সোনারগাঁও ও মোগড়াপাড়া ইউনিয়ন ঘুরে জানা যায়,মাদক সম্রাট সজীবের নানা অপকর্মের কাহিনী।

 

নাম প্রকাশ না করে বাড়িমজলিশ এলাকাবাসী জানান,কোন কিছু না করেই কয়েক কোটি টাকার মালিক বনে গেছে সজীব। চলেন রাজকীয় বেশে, একটি হায়েস গাড়ি ও একটি প্রাইভেট কারে র মালিক সহ গড়ে তুলেছেন ব্যাংক ব্যালেন্স।চলেন নিজস্ব গাড়িতে। সবাইকে বলে বেড়ান গাড়ি ভাড়া দিয়ে চলেন। এর সত্যতাও পাওয়া যায়নি। র‌্যাব পুলিশের হাতে আটক হবার ভয়ে নিজ বাড়িতে না থেকে বিন্নিপাড়ায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। প্রকাশ্যে বলে বেড়ান আমার বিরুদ্ধে লিখে কিছু করতে পারবেনা। পুলিশ,ডিবি পুলিশ ও র‌্যাব এবং রাজনৈতিক নেতারা আমার পকেটে থাকে। আমার গুরু নান্নু ভাই ও কায়ছার ভাই।

 

মাদক সম্রাট সজীব ২ টি গাড়ি দিয়ে বিভিন্ন এলাকায় মাদক সরবরাহ করে থাকে। পুলিশ গোপনে সোর্স লাগিয়ে এর সত্যতা একশো ভাগ পাবে বলে মনে করেন সচেতন এলাকাবাসী।

 

একটি সুত্র হতে জানা যায়,এসকে সজীব একজন দুর্ধর্ষ খুনীও। আরমানকে গলাকেটে হত্যা করে জেলখেটে জামিনে বের হয়ে আসে। রাজনৈতিক শেল্টার নিয়ে মাদক ব্যবসা সহ নানান অপকর্ম করে বেড়ালেও ক্ষমতাসীন দলের নেতা হওয়ায় আইন শৃংখলা বাহিনী নীরব ভূমিকা পালন করছে।

 

সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু মুঠোফোনে জাগো নারায়ণগঞ্জ কে বলেন,আমার চোখে সজীবের এ রকম কর্মকান্ড দেখিনি।

 

এ ব্যাপারে এসকে সজীব মুঠোফোনে জানান, ভাই আমার বয়স যখন ২/৩ বছর তখন আমার আব্বা মারা গিয়েছে। কে বলেছে আপনাকে এ কথা। তিনি আরও বলেন,আজ থেকে আমি আপনার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জে গেলাম যদি পারেন তাহলে লেইখ্যা বা… ফালাইয়েন।

 

সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হাফিজুর রহমান মুঠোফোনে উজ্জীবিত বিডি ডট কমকে বলেন,ভাই আমাদের পুলিশের পক্ষে সব সময় মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারীকে ধরতে সম্ভব হয়না। যদি পুলিশ এবং সাংবাদিক একে-অপরকে মাদক নির্মুলে সহযোগিতা করেন তাহলে সহজতর হয়। সে কোথায় মাদক বিক্রি করছে আমাদেরকে জানালে আমরা অবশ্যই তাকে গ্রেফতার করবো। যদি এভাবে হয় তাহলে সোনারগাঁয়ের সকল মাদক বিক্রেতাদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here

সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
editor.kuakatanews@gmail.com

যোগাযোগ: সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
ফোন: +৮৮ ০১৬৭৪৬৩২৫০৯, ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯,
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯ ।

News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD