কালীরবাজারের চোরাই স্বর্ন ব্যবসায়ী অঞ্জনের বিরুদ্ধে আদালতে স্ত্রী’র মামলা!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

বারবার সংসারের টানে স্বামী ও সন্তানদের মুখের দিকে চেয়ে হাজারো নির্যাতন সহ্য করেও এবার টিকতে না পেরে স্বামী ও শ্বশুড় শ্বাশুড়ীর লোভের শিকার হয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে দুই সন্তানের জননী দুলু কর্মকার।

 

দফায় দফায় নির্যাতনের শিকার দুলু কর্মকার প্রথমে স্থানীয় মুরুব্বীদের দারস্থ হলে তারা ব্যর্থ হন । সন্তান ও সংসারের স্বার্থে গৃহবধু দুলু কর্মকার বারবার পিতার কাছ থেকে যৌতুকে এনে দেয়ার পরও লোভের মাত্রা যেন আরো বৃদ্ধি পায় । এবার বাবার দেয়া বাড়ি ও আরো ১০ লাখ টাকা যৌতুকের দাবীতে মারধর করার অভিযোগে স্বামী অঞ্জন কর্মকার, শ্বশুর গোপী নাথ কর্মকার ও শ্বাশুড়ী সবিতা কর্মকারের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা করেন গৃহবধু দুলু রানী।

 

মামলা দায়েরের পর থেকে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে স্বামী অঞ্জন কর্মকার। প্রতিনিয়তঃ বাড়ীর সমানে স্ত্রী দুলু কর্মকারকে হত্যা করতে ছোড়া হাতে ঘুরে বেড়ায় অঞ্জন। এমন ঘটনায় আতংকের সৃষ্টি হয়েছে দুলু কর্মকার ও দুই সন্তানের মাঝে।

 

যৌতুকের জন্য স্ত্রী দুলু কর্মকারকে মারধর ও নির্যাতনের ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক নাজমুল হক শ্যামল থানা পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনের পর স্বামী অঞ্জন কর্মকারের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট জারি এবং শ্বশুর গোপী নাথ কর্মকার ও শ্বাশুড়ী সবিতা কর্মকারের বিরুদ্ধে আদালতে হাজির হতে গত বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারী) সমন জারি করেন।

 

মামলার বিবরণে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ শহরের কালীরবাজার স্বর্ন পট্টি এলাকার চোরাই স্বর্ণ বেচারকেনার হোতা ও নানা কেলেংকারীর মধ্যমনি তীর্থ অলংকারের কর্ণধার অঞ্জন কর্মকার ১৯৯৯ সালের ২৭ এপ্রিল বিয়ে করেন বন্দর এলাকার গৌরাঙ্গ কর্মকারের মেয়ে দুলু কর্মকারকে। বিয়ের সময় জুয়েলারী ব্যবসার কথা বলে ১০ লাখ টাকা যৌতুক এবং ২৫ ভরি স্বর্ণালংকার দেয় দুলুর বাবা। এরপর তারে ২০০০ সালে তীর্থ কর্মকার ও ২০০৭ সালে স্নেহ কর্মকার নামের দুই পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। এরপর থেকে শুরু হয় আরো যৌতুকের জন্য মারধর । দফায় দফায় চলে এমন নির্যাতন। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে বাবা গৌরাঙ্গ কর্মকার তার মেয়েকে বন্দরে একটি ৬ শতাংশ জমির উপর বাড়ি তৈরী করে দেয় । এবার এই বাড়ি ও আরো ১০ লাখ টাকা যৌতুকের দাবীতে মারধর করে যৌতুকলোভী স্বামী ও শ্বশুড় – শ্বাশুড়ী। গত বছর ১৩ নভেম্বর এমন নির্যাতনের পর আদালতে মামলা দায়ের করলে আদালত বন্দর থানা পুলিশকে তদন্তের আদেশ দেন ।

 

তদন্ত শেষে বন্দর থানা পুলিশ আদালতে যৌতুললোভী স্বামী , শ্বশুড় ও শ্বাশুড়ীর বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করে । এমন প্রতিবেদনের পর আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বৃহস্পতিবার ওয়ারেন্ট জারি করেন স্বামী অঞ্জন কর্মকারের বিরুদ্ধে । একই সাথে শ্বশুর গোপী নাথ কর্মকার ও শ্বাশুড়ী সবিতা কর্মকারের বিরুদ্ধে আদালতে হাজির হতে আদেশ দেন।

 

ঘটনার বিষয়ে মামালার বাদী দুলু রানী কর্মকার আরো জানান, আমার এক ছেলে ইঞ্জিনিয়ার পড়াশোনা করতেছে । আরেক ছেলে স্কুলে পড়াশোনা করে । এই অবস্থায় আমার বাবার কাছ থেকে এখনো যৌতুকের দাবীতে আমার উপর সন্তানদের সামনে নির্যাতন চালায়। আমার স্বামী ছাড়াও আমার উপর নির্যাতন করে আমার শ্বাশুড়ী সবিতা রানী, শ্বশুড় গোপিনাথ কর্মকার, জেঠা শ্বশুড় বিশ্বনাথ কর্মকার। বিশ্বনাথ কর্মকার আমার জেঠা শ্বশুড় হলেও আমাকে তিনি নানাভাবে কুপ্রস্তাবও দেন। আর আমার শ্বশুড় আমার পিতৃতুল্য গোপিনাথ কর্মকার কে নারী কেলেংকারীর জন্য কতবার যে জনতার হাতে গণপিটুনীর শিকার হয়েছেন তার কোন হিসাব নাই । যর খবর পুরো কালীর বাজারের সকলেই জানেন ।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

সর্বশেষ সংবাদ



» যৌতুক মামলায় আর্থিক দন্ডপ্রাপ্ত হয়েও সরকারী চাকুরীতে বহাল তবিয়তে প্রধান শিক্ষিকা

» গাজীপুর আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন এডভোকেট শামসুল হক

» ৬ষ্ঠ বছরে পদার্পণ উপলক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের অভিষেক অনুষ্ঠিত

» মৌলভীবাজারে দৈনিক গণমুক্তি‘র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

» বুড়িগঙ্গা নদী থেকে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার

» ফতুল্লায় ইয়াবা ট্যাবলেটসহ শান্ত ও বাবু গ্রেফতার

» আমতলীতে ৪০০ গ্রাম গাঁজা এবং ১০ পিস ইয়াবাসহ আটক ৩ কারবারী

» ফতুল্লায় যমুনা ডিপো গেইট থেকে তেলসহ চুরি হওয়া ট্যাকলড়ী কাচপুরে উদ্ধার

» ফতুল্লায় লঞ্চের ধাক্কায় ট্রলার চালক নিহত

» সাংবাদিকের বাবা-মায়ের উপর হামলা, রক্তাক্ত জখম

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : ফয়সাল আহম্মেদ
সহ-বার্তা সম্পাদক : সেলিম হাওলাদার
editor.kuakatanews@gmail.com

প্রধান কার্যালয় : সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : সেহাচর, তক্কারমাঠ রোড, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ।
ফোন : +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ০১৬৭৪৬৩২৫০৯
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯।

Email : ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, খ্রিষ্টাব্দ, ১৮ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কালীরবাজারের চোরাই স্বর্ন ব্যবসায়ী অঞ্জনের বিরুদ্ধে আদালতে স্ত্রী’র মামলা!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

বারবার সংসারের টানে স্বামী ও সন্তানদের মুখের দিকে চেয়ে হাজারো নির্যাতন সহ্য করেও এবার টিকতে না পেরে স্বামী ও শ্বশুড় শ্বাশুড়ীর লোভের শিকার হয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে দুই সন্তানের জননী দুলু কর্মকার।

 

দফায় দফায় নির্যাতনের শিকার দুলু কর্মকার প্রথমে স্থানীয় মুরুব্বীদের দারস্থ হলে তারা ব্যর্থ হন । সন্তান ও সংসারের স্বার্থে গৃহবধু দুলু কর্মকার বারবার পিতার কাছ থেকে যৌতুকে এনে দেয়ার পরও লোভের মাত্রা যেন আরো বৃদ্ধি পায় । এবার বাবার দেয়া বাড়ি ও আরো ১০ লাখ টাকা যৌতুকের দাবীতে মারধর করার অভিযোগে স্বামী অঞ্জন কর্মকার, শ্বশুর গোপী নাথ কর্মকার ও শ্বাশুড়ী সবিতা কর্মকারের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা করেন গৃহবধু দুলু রানী।

 

মামলা দায়েরের পর থেকে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে স্বামী অঞ্জন কর্মকার। প্রতিনিয়তঃ বাড়ীর সমানে স্ত্রী দুলু কর্মকারকে হত্যা করতে ছোড়া হাতে ঘুরে বেড়ায় অঞ্জন। এমন ঘটনায় আতংকের সৃষ্টি হয়েছে দুলু কর্মকার ও দুই সন্তানের মাঝে।

 

যৌতুকের জন্য স্ত্রী দুলু কর্মকারকে মারধর ও নির্যাতনের ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক নাজমুল হক শ্যামল থানা পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনের পর স্বামী অঞ্জন কর্মকারের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট জারি এবং শ্বশুর গোপী নাথ কর্মকার ও শ্বাশুড়ী সবিতা কর্মকারের বিরুদ্ধে আদালতে হাজির হতে গত বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারী) সমন জারি করেন।

 

মামলার বিবরণে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ শহরের কালীরবাজার স্বর্ন পট্টি এলাকার চোরাই স্বর্ণ বেচারকেনার হোতা ও নানা কেলেংকারীর মধ্যমনি তীর্থ অলংকারের কর্ণধার অঞ্জন কর্মকার ১৯৯৯ সালের ২৭ এপ্রিল বিয়ে করেন বন্দর এলাকার গৌরাঙ্গ কর্মকারের মেয়ে দুলু কর্মকারকে। বিয়ের সময় জুয়েলারী ব্যবসার কথা বলে ১০ লাখ টাকা যৌতুক এবং ২৫ ভরি স্বর্ণালংকার দেয় দুলুর বাবা। এরপর তারে ২০০০ সালে তীর্থ কর্মকার ও ২০০৭ সালে স্নেহ কর্মকার নামের দুই পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। এরপর থেকে শুরু হয় আরো যৌতুকের জন্য মারধর । দফায় দফায় চলে এমন নির্যাতন। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে বাবা গৌরাঙ্গ কর্মকার তার মেয়েকে বন্দরে একটি ৬ শতাংশ জমির উপর বাড়ি তৈরী করে দেয় । এবার এই বাড়ি ও আরো ১০ লাখ টাকা যৌতুকের দাবীতে মারধর করে যৌতুকলোভী স্বামী ও শ্বশুড় – শ্বাশুড়ী। গত বছর ১৩ নভেম্বর এমন নির্যাতনের পর আদালতে মামলা দায়ের করলে আদালত বন্দর থানা পুলিশকে তদন্তের আদেশ দেন ।

 

তদন্ত শেষে বন্দর থানা পুলিশ আদালতে যৌতুললোভী স্বামী , শ্বশুড় ও শ্বাশুড়ীর বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করে । এমন প্রতিবেদনের পর আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বৃহস্পতিবার ওয়ারেন্ট জারি করেন স্বামী অঞ্জন কর্মকারের বিরুদ্ধে । একই সাথে শ্বশুর গোপী নাথ কর্মকার ও শ্বাশুড়ী সবিতা কর্মকারের বিরুদ্ধে আদালতে হাজির হতে আদেশ দেন।

 

ঘটনার বিষয়ে মামালার বাদী দুলু রানী কর্মকার আরো জানান, আমার এক ছেলে ইঞ্জিনিয়ার পড়াশোনা করতেছে । আরেক ছেলে স্কুলে পড়াশোনা করে । এই অবস্থায় আমার বাবার কাছ থেকে এখনো যৌতুকের দাবীতে আমার উপর সন্তানদের সামনে নির্যাতন চালায়। আমার স্বামী ছাড়াও আমার উপর নির্যাতন করে আমার শ্বাশুড়ী সবিতা রানী, শ্বশুড় গোপিনাথ কর্মকার, জেঠা শ্বশুড় বিশ্বনাথ কর্মকার। বিশ্বনাথ কর্মকার আমার জেঠা শ্বশুড় হলেও আমাকে তিনি নানাভাবে কুপ্রস্তাবও দেন। আর আমার শ্বশুড় আমার পিতৃতুল্য গোপিনাথ কর্মকার কে নারী কেলেংকারীর জন্য কতবার যে জনতার হাতে গণপিটুনীর শিকার হয়েছেন তার কোন হিসাব নাই । যর খবর পুরো কালীর বাজারের সকলেই জানেন ।

ফেসবুক মন্তব্য করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা সম্পাদক : ফয়সাল আহম্মেদ
সহ-বার্তা সম্পাদক : সেলিম হাওলাদার
editor.kuakatanews@gmail.com

প্রধান কার্যালয় : সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : সেহাচর, তক্কারমাঠ রোড, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ।
ফোন : +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ০১৬৭৪৬৩২৫০৯
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯।

Email : ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD