৭ দিনের পুলিশি অভিযানে বিরিয়ানির দোকান থেকে উদ্ধার হল ১২টি বিড়াল!

উজ্জীবিত বিডি :- খাসি, মুর্গি নয়, বিরিয়ানি বানানো হচ্ছিল বিড়ালের মাংস দিয়ে। দাম তুলনামূলকভাবে কম হওয়ায় বিক্রিও হচ্ছিল রমরমা। ভারতের চেন্নাইয়ে সাতদিন ধরে পুলিশি অভিযানে বিরিয়ানির দোকানগুলো থেকে উদ্ধার করা হল ১২টি বিড়াল। আবাদি, পাল্লাভরম, তিরুমুল্লাইয়াভোরাম, পুম্পোজিল এবং কান্নিকাপুরমে অভিযান চালিয়ে বিড়ালগুলোকে উদ্ধার করা হয়। এসব ক’টি এলাকাই আদিবাসী অধ্যুষিত। প্রথমবার বিড়াল রহস্যজনকভাবে উধাও হওয়ার অভিযোগ আসে বালাজিনগর এলাকা থেকে।

 

এক বাসিন্দার অভিযোগ ছিল, বিগত কয়েকদিন ধরে তার ও তার প্রতিবেশীদের পোষা বিড়াল উধাও হয়ে যাচ্ছে। ক্রমে বিড়াল উধাও হওয়ার ঘটনা বাড়তে থাকে। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, বিড়াল চুরি করছে আদিবাসীদের একাংশ।কয়েকজনকে জেরা করে জানা যায়, বিড়াল তারাই চুরি করছে। কোথায় বিক্রি করা হচ্ছে এ বিড়ালগুলোকে, সেই জেরায় ওঠে আসে বিরিয়ানির দোকানগুলোর নাম। এ অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কয়েকজন আদিবাসীকে। মানুষের কিছু অদ্ভুত খাবারঃ কথায় আছে ‘আপ রুচি খানা’।

 

তবে রুচি তো সংস্কৃতি, খাদ্যাভাস, পরিবেশ সবটার ওপরেই নির্ভর করে। এলাকাভেদে খাদ্যাভাসে রয়েছে বিস্তর ফারাক। তেমনই এক জনের কাছে যা বিশেষ প্রিয় খাবার, অন্য জনের কাছে তা খাওয়া দুঃস্বপ্নের মতো। নতুন খাবার চেখে দেখতে যারা ভয় পান না, তারা ট্রাই করতেই পারেন এই ডিশগুলো। তবে শর্ত একটাই। ভয় পেলে চলবে না।

 

অক্স টাঙ্গ : কানাডায় ষাঁড়ের জিভ দিয়ে তৈরি হয় এই ডিশ। হাই ফ্যাট থাকে এই খাবারে। ফ্রুট ব্যাট স্যুপ : পালাওয়ের জনপ্রিয় খাবার এই বাদুড়ের স্যুপ। বালুট : ফিলিপাইনের জনপ্রিয় ডিশ হাঁসের ভ্রূণ দিয়ে তৈরি এই বালুট। সেঞ্চুরি এগ : চীনে হাঁসের ডিম দীর্ঘদিন ধরে পচিয়ে তৈরি হয় এই বিশেষ রেসিপি।

 

ফ্রায়েড ট্যারেন্টুলা : কম্বোডিয়ায় গেলে মিস করবেন না যেন। ভয়ঙ্কর ট্যারেন্টুলা ফ্রাই অবশ্যই চেখে দেখবেন। ক্রোকোডাইল পাও ডিশ : হংকং, সিঙ্গাপুর এবং চীনে গেলে কুমিরের পায়ের এই রেসিপি ট্রাই করতে পারেন। ব্লাড স্যুপ : এক্সপেরিমেন্টাল ডিশ ট্রাই করার আদর্শ জায়গা চীন। মুরগি, হাঁস বা শুকরের রক্তের স্যুপ খেতে চাইলেও যেতে হবে চীনে। স্নেক ওয়াইন : রাইস ওয়ান অথবা গ্রেইন অ্যালকোহলে আস্ত সাপ ডুবিয়ে রাখা হয়। কোরিয়াতে এই খাবার বেশ জনপ্রিয়।

 

টুনা ফিস আইবল : চীন এবং জাপানে গেলে টুনা মাছের চোখ দিয়ে তৈরি এই খাবার চেখে দেখতে পারেন। স্মালাহোভ : নরওয়েতে গেলে চেখে দেখতেই পারেন ছাগলের আস্ত মাথা দিয়ে তৈরি এই অভিনব ডিশ। স্কর্পিয়ান ললিপপ : ললিপপ তো অনেক খেয়েছেন। কিন্তু মেক্সিকোর কাঁকড়াবিছের ললিপপ খেয়েছেন কী? সন্নকজি : জ্যান্ত অক্টোপাস কেটে তৈরি করা হয় কোরিয়ার ফেভারিট ডিশ সন্নকজি।
Facebook Comments

সর্বশেষ সংবাদ



» সরকার দেশের মূল ধারার সঙ্গে পার্বত্যঞ্চলকেও এগিয়ে নিচ্ছে-শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপুমনি

» দেশের গণতন্ত্র উদ্ধার করতে হলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে: কালাম

» ফতুল্লায় গ্রাম পুলিশ মোস্তফা ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে থানায় জিডি

» ফতুল্লায় সাধারন মানুষের আতংক সোর্স আসিফ ও নিশাদ

» এসএসসি পরীক্ষায় মারাত্মক ফল বিপর্যয় কুড়েরপাড় উচ্চ বিদ্যালয়ে

» গোগনগর ইউনিয়ন পরিষদের দেড় কোটি টাকার বাজেট ঘোষনা

» ফতুল্লা থানা ও ডিবি পুলিশের অভিযানে মাদকসহ গ্রেপ্তার-৮

» আজ মাগফিরাতের ৭ম দিবস সালাত আদায় করলে আল্লাহপাকের পাঁচটি পুরস্কার

» বিশ্বকাপে অপরিবর্তিত দল নিয়েই খেলবে বাংলাদেশ

» মেঘনায় কার্গো জাহাজের ধাক্কায় তলা ফেটে গেল যাত্রীবোঝাই লঞ্চের



প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ

সহ- সম্পাদক : কামাল হোসেন খান

বার্তা সম্পাদক: সাদ্দাম হো‌সেন শুভ

উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন

 

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD



আজ : বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

৭ দিনের পুলিশি অভিযানে বিরিয়ানির দোকান থেকে উদ্ধার হল ১২টি বিড়াল!

উজ্জীবিত বিডি :- খাসি, মুর্গি নয়, বিরিয়ানি বানানো হচ্ছিল বিড়ালের মাংস দিয়ে। দাম তুলনামূলকভাবে কম হওয়ায় বিক্রিও হচ্ছিল রমরমা। ভারতের চেন্নাইয়ে সাতদিন ধরে পুলিশি অভিযানে বিরিয়ানির দোকানগুলো থেকে উদ্ধার করা হল ১২টি বিড়াল। আবাদি, পাল্লাভরম, তিরুমুল্লাইয়াভোরাম, পুম্পোজিল এবং কান্নিকাপুরমে অভিযান চালিয়ে বিড়ালগুলোকে উদ্ধার করা হয়। এসব ক’টি এলাকাই আদিবাসী অধ্যুষিত। প্রথমবার বিড়াল রহস্যজনকভাবে উধাও হওয়ার অভিযোগ আসে বালাজিনগর এলাকা থেকে।

 

এক বাসিন্দার অভিযোগ ছিল, বিগত কয়েকদিন ধরে তার ও তার প্রতিবেশীদের পোষা বিড়াল উধাও হয়ে যাচ্ছে। ক্রমে বিড়াল উধাও হওয়ার ঘটনা বাড়তে থাকে। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, বিড়াল চুরি করছে আদিবাসীদের একাংশ।কয়েকজনকে জেরা করে জানা যায়, বিড়াল তারাই চুরি করছে। কোথায় বিক্রি করা হচ্ছে এ বিড়ালগুলোকে, সেই জেরায় ওঠে আসে বিরিয়ানির দোকানগুলোর নাম। এ অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কয়েকজন আদিবাসীকে। মানুষের কিছু অদ্ভুত খাবারঃ কথায় আছে ‘আপ রুচি খানা’।

 

তবে রুচি তো সংস্কৃতি, খাদ্যাভাস, পরিবেশ সবটার ওপরেই নির্ভর করে। এলাকাভেদে খাদ্যাভাসে রয়েছে বিস্তর ফারাক। তেমনই এক জনের কাছে যা বিশেষ প্রিয় খাবার, অন্য জনের কাছে তা খাওয়া দুঃস্বপ্নের মতো। নতুন খাবার চেখে দেখতে যারা ভয় পান না, তারা ট্রাই করতেই পারেন এই ডিশগুলো। তবে শর্ত একটাই। ভয় পেলে চলবে না।

 

অক্স টাঙ্গ : কানাডায় ষাঁড়ের জিভ দিয়ে তৈরি হয় এই ডিশ। হাই ফ্যাট থাকে এই খাবারে। ফ্রুট ব্যাট স্যুপ : পালাওয়ের জনপ্রিয় খাবার এই বাদুড়ের স্যুপ। বালুট : ফিলিপাইনের জনপ্রিয় ডিশ হাঁসের ভ্রূণ দিয়ে তৈরি এই বালুট। সেঞ্চুরি এগ : চীনে হাঁসের ডিম দীর্ঘদিন ধরে পচিয়ে তৈরি হয় এই বিশেষ রেসিপি।

 

ফ্রায়েড ট্যারেন্টুলা : কম্বোডিয়ায় গেলে মিস করবেন না যেন। ভয়ঙ্কর ট্যারেন্টুলা ফ্রাই অবশ্যই চেখে দেখবেন। ক্রোকোডাইল পাও ডিশ : হংকং, সিঙ্গাপুর এবং চীনে গেলে কুমিরের পায়ের এই রেসিপি ট্রাই করতে পারেন। ব্লাড স্যুপ : এক্সপেরিমেন্টাল ডিশ ট্রাই করার আদর্শ জায়গা চীন। মুরগি, হাঁস বা শুকরের রক্তের স্যুপ খেতে চাইলেও যেতে হবে চীনে। স্নেক ওয়াইন : রাইস ওয়ান অথবা গ্রেইন অ্যালকোহলে আস্ত সাপ ডুবিয়ে রাখা হয়। কোরিয়াতে এই খাবার বেশ জনপ্রিয়।

 

টুনা ফিস আইবল : চীন এবং জাপানে গেলে টুনা মাছের চোখ দিয়ে তৈরি এই খাবার চেখে দেখতে পারেন। স্মালাহোভ : নরওয়েতে গেলে চেখে দেখতেই পারেন ছাগলের আস্ত মাথা দিয়ে তৈরি এই অভিনব ডিশ। স্কর্পিয়ান ললিপপ : ললিপপ তো অনেক খেয়েছেন। কিন্তু মেক্সিকোর কাঁকড়াবিছের ললিপপ খেয়েছেন কী? সন্নকজি : জ্যান্ত অক্টোপাস কেটে তৈরি করা হয় কোরিয়ার ফেভারিট ডিশ সন্নকজি।
Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ





সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



প্রকাশক : মো:  আবদুল মালেক
সম্পাদক : মো: সো‌হেল অাহ‌ম্মেদ

সহ- সম্পাদক : কামাল হোসেন খান

বার্তা সম্পাদক: সাদ্দাম হো‌সেন শুভ

উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন

 

যোগাযোগ: বাড়ী- ৫০৬/এ, রোড- ৩৫,
মহাখালী, ডি ও এইচ এস, ঢাকা- ১২০৬,
ফোন: +৮৮ ০১৯৭৪ ৬৩২ ৫০৯, ৯৮৯১৮২৫,
বার্তা এবং বিজ্ঞাপন : + ৮৮ ০১৬৭৪ ৬৩২ ৫০৯।
News: ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD