ছিনতাই মামলার আসামী অমল এখন মাসদাইর পৌর শ্মশানের ডোম!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

বরিশালে দিনে দুপুরে চোখে মরিচের গুড়া ছিটিয়ে ওষুধ ব্যাবসায়ীর ৫ লক্ষ টাকা ছিনতাইকালে জনি ডোম নামে এক ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছিলো পুলিশ।

 

সেই জনি ডোমের সাথে ছিনতাইকাজে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলো আপনভাই অমল ডোম। যিনি এখনও পর্যন্ত পলাতক রয়েছেন উক্ত ঘটনার পর থেকে।

 

সেই অমল ডোম এখন নারায়ণগঞ্জ পৌর শ্মশানের ডোম হিসেবে চাকুরী নিয়েছেন প্রায় সপ্তাহ খানেক পুর্বে।

 

একজন ছিনতাই মামলার আসামী কিভাবে সরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরী পায় তা নিয়েই জল্পনা-কল্পনা চলছে পুরো শ্মশান এলাকায়। নবনিযুক্ত অমল ডোম বরিশাল কাউনিয়া এলাকার ডোম বাড়ির বাদল ডোমের ছেলে।

 

এদিকে মাসদাইর পৌর মহাশ্মশান থেকে কোন প্রকার কারন ছাড়াই টনি ডোমকে চাকুরীচ্যুত করা হয় কিছু অর্থলোভী কর্মকর্তাদের কারনে। প্রায় বছর খানেক পুর্বে শ্মশানের অভ্যন্তরে একটি অপ্রীতিকর ঘটনার সুত্রকে টেনে টনিকে সেখান থেকে পরিবারসহ বের করা হয়।

 

সেই ঘটনার মহানায়ক ছিলেন শ্মশানের পুরোহিতশান্তি ঘোষালের ভাতিজা সবুজ কিন্তু শ্মশানের অভ্যন্তরে প্রতিদিন যে সকল অনিয়ম হচ্ছে তা সে সর্ম্পকে পুরোটাই অবগত রয়েছেন বর্তমানের শ্মশান পরিচালনা কমিটির সভাপতি ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ^াস। লাশ দাহ করতে অতিরিক্ত টাকা আদায়,ভিচুরী রান্না করতে প্রায় ৬০০০ টাকা ( প্রতি ডেগ) এবং শ্মশানের ভেতের মাদক বিক্রি করাসহ যাবতীয় অনিয়ম সর্ম্পকেই অবগত রয়েছে এ কাউন্সিলর। পাশাপাশি রয়েছেন পুরোহিত শান্তি ঘোষাল। শ্মশানের ভেতরে ঘটে যাওয়া সেই অপ্রীতিকর ঘটনাকে “ উদোড় পিন্ডি ভুদোড় ঘাড়ে ” অথ্যাৎ সবুজকে বাচাতে গিয়ে তার পুরো দায়ভার চাপিয়ে টনির উপর।

 

সেই ঘটনায় সিটি কর্পোরেশন ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেন যার প্রধান ছিলেন কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ^াস।

 

উক্ত ঘটনার বিস্তারিত জানতে তদন্ত কমিটির প্রধান কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ^াস অভিযুক্ত ( শান্তি ঘোষাল ও অসিত বরনের মতে ) টনি ডোমের সাথে কোন প্রকার যোগাযোগ ছাড়াই চুড়ান্ত রিপোর্ট তৈরী করে তা মেয়র বরাবর হস্তান্তর করেন। এদিকে শ্মশানের ভেতরে অপ্রীতিকর ঘটনার জন্ম দিয়েই প্রায় ২৫ দিন বরিশালে পালিয়ে ছিলেন শান্তি ঘোষালের ভাতিজা সবুজ।

 

কাউন্সিলরসহ অন্যান্য হিন্দু নেতাদের দাবী যে,টনির বিরুদ্ধে নাকি তাদের ব্যাপক বিষোদগার রয়েছে কিন্তু তা অস্বীকার করেছেন বাংলাদেশ পুজা উদযাপন কমিটি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক শিপন সরকার শিখন।

 

তিনি জানান,আমাদের সংগঠন থেকে টনির বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই কারন টনি করোনাকালীন সময়ে মাসদাইর পৌর শ্মশানে হিন্দু সম্প্রদায়ের মৃত সকলকে দাহ করেছেন। সেই সময়ে সাধারন মানুষ যখন ভয়ে আতংকে দিন কাটাচ্ছিলেন এবং পরিবারের কোন সদস্য’র মৃত্যুর পর তার মৃত দেহটি একনজর দেখতেও কাছে ছুটে যায়নি ঠিক সেই সময়ে টনি ডোমই কিন্তু নিজের জীবনকে বাজি রেখে সৎকার কাজ চালিয়ে গেছেন বিরতিহীনভাবে। এবং নারায়ণগঞ্জে করোনাকালীর সময়ে সকল টিমকে সার্বিক সহযোগিতাও করেছিলো এ টনি। তবে অনেকের ধারনা যে,টনি বর্তমান সময়ে অপরাজনীতির গ্যাড়াকলের শিকার।

অপরদিকে টনির স্থলে বর্তমানে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে রবিশালে ব্যাংক ছিনতাইয়ের অন্যতম আসামী অমল ডোমকে চাকুরী দেয়া হয় যা নিয়ে সর্বত্র আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

উল্লেখ যে,২০২১ সালের ৩১ আগষ্ট মঙ্গলবার দুপুরে বরিশাল নগরীর জেল খানা মোড় এলকার অগ্রণী ব্যাংক সদর রোড শাখায় এ ঘটনা ঘটনায় বাদল ডোমের ছেলে জনি ডোম,অমল ডোমসহ তার এক সঙ্গী। সেদিন ইসলামি ব্যাংক হাসপাতালের সামনে হাওলাদার মেডিসিন এর মালিক আমিনুল ইসলাম পলাশ অগ্রনী ব্যাংক থেকে ৫ লক্ষ টাকা উত্তোলন করে বের হচ্ছিলেন। এ সময় এক ব্যক্তি একটি হিসেব ভুল হয়েছে বলে তাকে ডাকে। ব্যাংকে উঠার মুহুর্তে তার চোখে মরিচ ছিটিয়ে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। গ্রাহকের সাথে আরো একজন থাকায় অমল ডোমের ভাই জনি ডোমকে আটক করতে সমর্থ হয়েছিলো। যার একটি ভিডিও প্রতিবেদন করা হয়েছিলো বরিশাল দর্পন টিভিতে। সেই ছিনতাইয়ের ঘটনার পর থেকেই বরিশাল ত্যাগ করে নারায়ণগঞ্জে আত্মগোপনে চলে আসে অমল ডোম।

এ বিষয়ে এনসিসি ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ^াসের মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন,এ বিষয়টা আমার জানা নেই। তাছাড়া ওকে নিয়োগের পুর্বে আমরা অনেক তথ্য যাচাই করেছি কিন্তু এরুপ কোন ঘটনা শুনিনি। তবে আপনাদের কাছে যদি কোন ডকুমেন্ট থাকে তাহলে সিটি কর্পোরেশনে পাঠিয়ে দিয়েন।

এ বিষয়ে পৌর মহাশ্মশানে নবনিযুক্ত অমল ডোম জানান,আমার ছোটে ভাই নেশাগ্রস্ত ছিলো

ফেসবুক মন্তব্য করুন

সর্বশেষ সংবাদ



» আমতলীতে বিয়ের হাইএক্স মাইক্রোসসহ সেতু ধসে খালে ৯জনের লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ ৩

» আমতলীতে ছাগলে ধানগাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ৫!

» আমতলীতে খাদ্যদ্রব্যে বিষাক্ত কাপড়ের রং ব্যবহারে হোটেল মালিককে জরিমানা!

» ঈদকে সামনে রেখে বেনাপোলে ব্যাংক কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীদের সাথে পুলিশের আলোচনা সভা

» আমতলীতে ঘরের দলিল ও চাবি পেল ১০০ ভূমিহীন পরিবার

» শিক্ষকদের অনুপুস্থিতি আর অবহেলায় চলছে পাগলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

» ছিনতাই মামলার আসামী অমল এখন মাসদাইর পৌর শ্মশানের ডোম!

» ফতুল্লায় গ্যাস সংকট নিরসনে মানববন্ধন

» আমতলীতে ভূমি সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন!

» শার্শায় স্থানীয় সম্পদ আহরণ ও ব্যবস্থাপনা প্রশিক্ষণ

সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান

প্রকাশক : মো: আবদুল মালেক
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯।
editor.kuakatanews@gmail.com

প্রধান কার্যালয় : সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : সেহাচর, তক্কারমাঠ রোড, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ।
ফোন : +৮৮ ০১৬৭৪-৬৩২৫০৯, ০১৯১৮-১৭৮৬৫৯

Email : ujjibitobd@gmail.com

Desing & Developed BY RL IT BD
আজ : রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ছিনতাই মামলার আসামী অমল এখন মাসদাইর পৌর শ্মশানের ডোম!

সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

বরিশালে দিনে দুপুরে চোখে মরিচের গুড়া ছিটিয়ে ওষুধ ব্যাবসায়ীর ৫ লক্ষ টাকা ছিনতাইকালে জনি ডোম নামে এক ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছিলো পুলিশ।

 

সেই জনি ডোমের সাথে ছিনতাইকাজে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলো আপনভাই অমল ডোম। যিনি এখনও পর্যন্ত পলাতক রয়েছেন উক্ত ঘটনার পর থেকে।

 

সেই অমল ডোম এখন নারায়ণগঞ্জ পৌর শ্মশানের ডোম হিসেবে চাকুরী নিয়েছেন প্রায় সপ্তাহ খানেক পুর্বে।

 

একজন ছিনতাই মামলার আসামী কিভাবে সরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরী পায় তা নিয়েই জল্পনা-কল্পনা চলছে পুরো শ্মশান এলাকায়। নবনিযুক্ত অমল ডোম বরিশাল কাউনিয়া এলাকার ডোম বাড়ির বাদল ডোমের ছেলে।

 

এদিকে মাসদাইর পৌর মহাশ্মশান থেকে কোন প্রকার কারন ছাড়াই টনি ডোমকে চাকুরীচ্যুত করা হয় কিছু অর্থলোভী কর্মকর্তাদের কারনে। প্রায় বছর খানেক পুর্বে শ্মশানের অভ্যন্তরে একটি অপ্রীতিকর ঘটনার সুত্রকে টেনে টনিকে সেখান থেকে পরিবারসহ বের করা হয়।

 

সেই ঘটনার মহানায়ক ছিলেন শ্মশানের পুরোহিতশান্তি ঘোষালের ভাতিজা সবুজ কিন্তু শ্মশানের অভ্যন্তরে প্রতিদিন যে সকল অনিয়ম হচ্ছে তা সে সর্ম্পকে পুরোটাই অবগত রয়েছেন বর্তমানের শ্মশান পরিচালনা কমিটির সভাপতি ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ^াস। লাশ দাহ করতে অতিরিক্ত টাকা আদায়,ভিচুরী রান্না করতে প্রায় ৬০০০ টাকা ( প্রতি ডেগ) এবং শ্মশানের ভেতের মাদক বিক্রি করাসহ যাবতীয় অনিয়ম সর্ম্পকেই অবগত রয়েছে এ কাউন্সিলর। পাশাপাশি রয়েছেন পুরোহিত শান্তি ঘোষাল। শ্মশানের ভেতরে ঘটে যাওয়া সেই অপ্রীতিকর ঘটনাকে “ উদোড় পিন্ডি ভুদোড় ঘাড়ে ” অথ্যাৎ সবুজকে বাচাতে গিয়ে তার পুরো দায়ভার চাপিয়ে টনির উপর।

 

সেই ঘটনায় সিটি কর্পোরেশন ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেন যার প্রধান ছিলেন কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ^াস।

 

উক্ত ঘটনার বিস্তারিত জানতে তদন্ত কমিটির প্রধান কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ^াস অভিযুক্ত ( শান্তি ঘোষাল ও অসিত বরনের মতে ) টনি ডোমের সাথে কোন প্রকার যোগাযোগ ছাড়াই চুড়ান্ত রিপোর্ট তৈরী করে তা মেয়র বরাবর হস্তান্তর করেন। এদিকে শ্মশানের ভেতরে অপ্রীতিকর ঘটনার জন্ম দিয়েই প্রায় ২৫ দিন বরিশালে পালিয়ে ছিলেন শান্তি ঘোষালের ভাতিজা সবুজ।

 

কাউন্সিলরসহ অন্যান্য হিন্দু নেতাদের দাবী যে,টনির বিরুদ্ধে নাকি তাদের ব্যাপক বিষোদগার রয়েছে কিন্তু তা অস্বীকার করেছেন বাংলাদেশ পুজা উদযাপন কমিটি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক শিপন সরকার শিখন।

 

তিনি জানান,আমাদের সংগঠন থেকে টনির বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই কারন টনি করোনাকালীন সময়ে মাসদাইর পৌর শ্মশানে হিন্দু সম্প্রদায়ের মৃত সকলকে দাহ করেছেন। সেই সময়ে সাধারন মানুষ যখন ভয়ে আতংকে দিন কাটাচ্ছিলেন এবং পরিবারের কোন সদস্য’র মৃত্যুর পর তার মৃত দেহটি একনজর দেখতেও কাছে ছুটে যায়নি ঠিক সেই সময়ে টনি ডোমই কিন্তু নিজের জীবনকে বাজি রেখে সৎকার কাজ চালিয়ে গেছেন বিরতিহীনভাবে। এবং নারায়ণগঞ্জে করোনাকালীর সময়ে সকল টিমকে সার্বিক সহযোগিতাও করেছিলো এ টনি। তবে অনেকের ধারনা যে,টনি বর্তমান সময়ে অপরাজনীতির গ্যাড়াকলের শিকার।

অপরদিকে টনির স্থলে বর্তমানে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে রবিশালে ব্যাংক ছিনতাইয়ের অন্যতম আসামী অমল ডোমকে চাকুরী দেয়া হয় যা নিয়ে সর্বত্র আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

উল্লেখ যে,২০২১ সালের ৩১ আগষ্ট মঙ্গলবার দুপুরে বরিশাল নগরীর জেল খানা মোড় এলকার অগ্রণী ব্যাংক সদর রোড শাখায় এ ঘটনা ঘটনায় বাদল ডোমের ছেলে জনি ডোম,অমল ডোমসহ তার এক সঙ্গী। সেদিন ইসলামি ব্যাংক হাসপাতালের সামনে হাওলাদার মেডিসিন এর মালিক আমিনুল ইসলাম পলাশ অগ্রনী ব্যাংক থেকে ৫ লক্ষ টাকা উত্তোলন করে বের হচ্ছিলেন। এ সময় এক ব্যক্তি একটি হিসেব ভুল হয়েছে বলে তাকে ডাকে। ব্যাংকে উঠার মুহুর্তে তার চোখে মরিচ ছিটিয়ে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। গ্রাহকের সাথে আরো একজন থাকায় অমল ডোমের ভাই জনি ডোমকে আটক করতে সমর্থ হয়েছিলো। যার একটি ভিডিও প্রতিবেদন করা হয়েছিলো বরিশাল দর্পন টিভিতে। সেই ছিনতাইয়ের ঘটনার পর থেকেই বরিশাল ত্যাগ করে নারায়ণগঞ্জে আত্মগোপনে চলে আসে অমল ডোম।

এ বিষয়ে এনসিসি ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরন বিশ^াসের মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন,এ বিষয়টা আমার জানা নেই। তাছাড়া ওকে নিয়োগের পুর্বে আমরা অনেক তথ্য যাচাই করেছি কিন্তু এরুপ কোন ঘটনা শুনিনি। তবে আপনাদের কাছে যদি কোন ডকুমেন্ট থাকে তাহলে সিটি কর্পোরেশনে পাঠিয়ে দিয়েন।

এ বিষয়ে পৌর মহাশ্মশানে নবনিযুক্ত অমল ডোম জানান,আমার ছোটে ভাই নেশাগ্রস্ত ছিলো

ফেসবুক মন্তব্য করুন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Click Here




সর্বশেষ সংবাদ



সর্বাধিক পঠিত



About Us | Privacy Policy | Terms & Conditions | Contact Us

সম্পাদক : সো‌হেল আহ‌ম্মেদ
নির্বাহী সম্পাদক : কামাল হোসেন খান

প্রকাশক : মো: আবদুল মালেক
উপদেষ্টা সম্পাদক : রফিকুল্লাহ রিপন
বার্তা : + ৮৮ ০১৭৩১ ৬০০ ১৯৯।
editor.kuakatanews@gmail.com

প্রধান কার্যালয় : সৌদি ভিলা- চ ৩৫/৫ উত্তর বাড্ডা,
গুলশান, ঢাকা- ১২১২।
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : সেহাচর, তক্কারমাঠ রোড, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ।
ফোন : +৮৮ ০১৬৭৪-৬৩২৫০৯, ০১৯১৮-১৭৮৬৫৯

Email : ujjibitobd@gmail.com

© Copyright BY উজ্জীবিত বাংলাদেশ

Design & Developed BY Popular IT BD